নিখোঁজ সাংবাদিকের সন্ধানের নামে ১০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ নিখোঁজ সাংবাদিকের সন্ধানের নামে ১০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ – CTG Journal

রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০১:২৮ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত থেকে ৩০ লাখ টাকার ইয়াবা উদ্ধার নীতিহীন সাংবাদিকতা যেন না হয়: প্রধানমন্ত্রী রংপুরে ‘আল্লাহর দল’র ৩ সদস্য গ্রেফতার পদ্মা সেতুর ৩৪তম স্প্যান স্থাপন, দৃশ্যমান ৫.১ কিলোমিটার শাহ আমানতে বিদেশী অর্থসহ ২ যাত্রী আটক শনিবার চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত ৩২ দেশে ফিরছে নৌবাহিনীর যুদ্ধ জাহাজ বিজয় শান্তিরক্ষা মিশনে নারীর অংশগ্রহণ আরও বাড়ানোর আহ্বান বাংলাদেশের রামগড়ে ধর্ষণে অন্তসত্তা এক প্রতিবন্ধী, ধর্ষণের অভিযোগে আদালতে পিতার মামলা বাজারমুখী হচ্ছেন দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীরা আলোচিত ১০ স্কুল প্রকল্পে ৩শ কোটি টাকা লোপাটের প্রমাণ পায়নি মন্ত্রণালয় আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে নিয়ামক ভূমিকা পালন করে সমৃদ্ধ আইনি কাঠামো : আইনমন্ত্রী
নিখোঁজ সাংবাদিকের সন্ধানের নামে ১০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

নিখোঁজ সাংবাদিকের সন্ধানের নামে ১০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

সিটিজি জার্নাল নিউজঃ নিখোঁজ দেশ টিভির মানিকগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি এম ওবায়দুর রহমানের সন্ধানের নামে বিকাশের মাধ্যমে ১০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। নিখোঁজের স্ত্রী সখিনা সুলতানা রানু জানিয়েছেন, চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা এলাকার মো. রেজাউল ইসলাম নিজেকে ইত্তেফাক পত্রিকার স্থানীয় সাংবাদিক পরিচয় দাবি জানিয়ে ওবায়দুরের সন্ধান মিলেছে বলে এই টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

এর আগে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি রাত ১১টার দিকে সাংবাদিক ওবায়দুর যশোর থেকে নিখোঁজ হন। এ ঘটনায় নিখোঁজ সাংবাদিকে পরিবারে পক্ষ থেকে যশোর কতোয়ালি থানায় জিডি করতে গেলে তা গ্রহণ করেনি থানা পুলিশ।

বাংলাদেশ কৃষক সমিতির মানিকগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি মো. লাবিবউদ্দিন আহম্মেদ লাবু ও সাধারণ সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম জানিয়েছেন, খুলনায় বাংলাদেশ কৃষক সমিতির জাতীয় সম্মেলনে যোগ দিয়ে ফেরার পথে যশোর মনিহর সিনেমা হল এলাকার একটি পেট্রোল পাম্প এলাকায় ১৫ ফেব্রুয়ারি রাত ১১টার দিকে তিনি নিখোঁজ হন। এরপর থেকে তাকে পাওয়া যাচ্ছে না।

নিখোঁজ সাংবাদিক ওবায়দুর রহমানের স্ত্রী সখিনা সুলতানা রানু মঙ্গলবার অভিযোগ করে জানান, তার স্বামীর সন্ধান এখনও পাওয়া যায়নি। তবে চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা এলাকার রেজাউল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি নিজেকে ইত্তেফাক পত্রিকার স্থানীয় সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে ওই নিখোঁজ স্বামীর সন্ধান মিলেছে বলে জানিয়ে বিকাশের মাধ্যমে তাদের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

তিনি আরও জানান, দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার ঘিওর উপজেলা প্রতিনিধি শফি আলম তাকে দামুড়হুদার রেজাউল ইসলাম নামে এক সাংবাদিকের উদ্ধৃতি দিয়ে জানায় নিখোঁজ ওবায়দুর রহমানকে অচেতন অবস্থায় দামুড়হুদার একটি সড়ক থেকে উদ্ধার হয়েছে। শারীরিক অবস্থা নাজুক। তাকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে রক্ত ,অক্সিজেনসহ ওষুধ লাগবে। এরপর তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে দামুড়হুদার ইত্তেফাক পত্রিকার কথিত সাংবাদিক রেজাউলের মোবাইল নম্বর ০১৭৯৪৮৮২৯৮৬ যোগাযোগ করা হলে তিনি ওবায়দুরকে উদ্ধারের কথা জানান।

পরে ওই রেজাউল ইসলাম তাদের কাছে জরুরি চিকিৎসা সেবা চালানোর জন্য ১০ হাজার টাকা দাবি করেন। বিষয়টি তারা কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য অ্যাডভোকেট আজহারুল ইসলাম আরজুকে জানান।

নিখোঁজ ওবায়দুরের খালাতো ভাই আনিস বিষয়টি নিয়ে ওই রেজাউলের সঙ্গে কথা বললে তাকেও তাৎক্ষণিকভাবে ১০ হাজার টাকা প্রয়োজন বলে ওই মোবাইল নম্বরে ১০ হাজার টাকা বিকাশ করতে বলেন। পরে টাকা গুলো ওই নম্বরে পাঠানো হয়। এরপর থেকে রেজাউলের মোবাইল নম্বরটি বন্ধ রয়েছে।

এদিকে কথা হয় ইত্তেফাকের মানিকগঞ্জের ঘিওর প্রতিনিধি শফি আলমের সাথে। তিনি বলেন, রেজাউল নামে ওই ব্যক্তি নিজেকে দামুড়হুদা উপজেলার ইত্তেফাক প্রতিনিধি পরিচয় দিয়ে ফোন করে নিখোঁজ ওবায়দুরের উদ্ধারের কথা আমাকে জানায়।

বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আজহারুল ইসলাম বলেন, ‘নিখোঁজ ওবায়দুরের পরিবার প্রতারণার শিকার হয়েছে। দামুড়হুদার এক প্রতারক ভুয়া খবর দিয়ে পরিবারের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। সাংবাদিক ওবায়দুর রহমানের সন্ধান এখনও মেলেনি।’

একে/এম

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT