২৮ জানুয়ারি রাঙামাটিতে মহাসমাবেশ, অস্ত্র ও চাঁদাবাজি বন্ধের দাবি ২৮ জানুয়ারি রাঙামাটিতে মহাসমাবেশ, অস্ত্র ও চাঁদাবাজি বন্ধের দাবি – CTG Journal

বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ০১:৫৫ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
কাপ্তাইয়ে জাতীয় কন্যা শিশু দিবস উদযাপন কাজের জন্য সৌদি আরবে যেতে চাইলে চাকরিদাতার ছাড়পত্র লাগবে করোনাভাইরাস: দেশে ৩২ জন মৃত্যুর দিনে শনাক্ত ১,৪৩৬ বান্দরবান সাংবাদিক ইউনিয়নের আত্মপ্রকাশ রায় শুনে কেঁদেছেন রিফাতের বাবা: জানালেন সন্তুষ্টি কথা চট্টগ্রামে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাবে সাড়ে ৫ লাখ শিশু খাগড়াছড়িতে ধর্ষণ রোধে পদক্ষেপ জানতে চেয়ে ডিসিকে আইনি নোটিশ বান্দরবানে এ” প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষ্যে সাংবাদিকদের কর্মশালা বন্যা: কুড়িগ্রামে কর্মহীনতা ও খাদ্য সংকট প্রকট রিফাত হত্যা: মিন্নিসহ ৬ জনের ফাঁসির রায় ইকামার মেয়াদ বাড়ানোর কোনও ঘোষণা সৌদি সরকার দেয়নি! করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা তিন কোটি ৩৮ লাখ ছাড়িয়েছে
২৮ জানুয়ারি রাঙামাটিতে মহাসমাবেশ, অস্ত্র ও চাঁদাবাজি বন্ধের দাবি

২৮ জানুয়ারি রাঙামাটিতে মহাসমাবেশ, অস্ত্র ও চাঁদাবাজি বন্ধের দাবি

সিটিজি জার্নাল নিউজঃ রাঙামাটি পার্বত্য জেলা থেকে সকল অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও ব্যাপক চাঁদা বাজির বন্ধের দাবিতে আগামী ২৮ জানুয়ারি জেলা আওয়ামী লীগের সমর্থনে সচেতন নাগরিক সমাজের ব্যানারে মহা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।

পার্বত্যাঞ্চলের অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও চাঁদাবাজি বন্ধের দাবিতে পাহাড়ের সকল ধর্মের মানুষ দলমত নির্বিশেষে জনগণকে সাথে নিয়ে এ মহা সমাবেশের আয়োজন করবে।

রাঙামাটি পার্বত্য জেলার সর্বস্তরের দীর্ঘ দিনের দাবি ছিল পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও চাঁদাবাজি বন্ধের আন্দোলন চলমান রাখা। এ এলাকার মানুষ মনে করে- পাহাড় থেকে অবৈধ অস্ত্রের প্রভাব ও চাঁদাবাজি বন্ধ হয়ে গেলে পাহাড়ে উন্নয়নের চিত্র পাল্টে যাবে। এখানে পর্যটন শিল্পও দেশি বিদেশি লোক জন এসে গড়ে তুলবেন বড় বড় শিল্প প্রতিষ্ঠান। পাহাড়ে সর্ব প্রথম ছিল শান্তিবাহিনী।

চুক্তির পর তারা আবার হয়ে গেছে জেএসএস, সংস্কার জেএসএস পন্থী, ইউনাইটেড পিপলস ফ্রন্ড(ইউপিডিএফ) ও নবগঠিত ইউপি ডিএফ গণতন্ত্র পার্টি। বর্তমানে পাহাড়ে ৪টি সন্ত্রাসী গ্রæপে বিভক্ত হয়েছে। পাহাড়ের লোকজন বলেন, আগে চাঁদা দিতে হতো জেএসএস ও ইউপিডিএফকে আর বর্তমানে চাঁদা দিতে হয় ৪ সন্ত্রাসী গ্রæপকে।পাহাড়ের মানুষ সুখে শান্তিতে বসবাস করতে চায়। তারা আর জিম্মি হয়ে থাকতে চায়না।

গত শুক্রবার বিকালে সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ সদস্য ও রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দীপংকর তালুকদারের চম্পক নগর বাস ভবনে স্থানীয় ব্যবসায়ি সমিতির নেতৃবৃন্দসহ স্থানীয় রাজনীতি দলের নেতাকর্মীর সাথে এ বিষয়ে মতবিনিময় কালে মহা সমাবেশের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

উপস্থিত সকলের মতামতের ভিত্তিতে সিদ্ধান্তে উল্লেখ্য করা হয় যে, সচেতন নাগরিক সমাজের ব্যানারে পরবর্তীতে প্রতিটি উপজেলাতে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও চাঁদাবজি বন্ধের দাবিতে সমাবেশের আয়োজ করা হবে। মতবিনিময় সভায় উপস্থিত লোকজন বলেন, যে হারে চাঁদাবজি বেড়ে গেছে এটাকে দ্রæত কঠোর হস্তে দমন করা না হলে পিঠে দেয়াল ঠেকে যাবে। মহা সমাবেশ সফল ও সার্থক করতে মতবিনিময় সভায় মতামত দেন সর্বস্তরের জনগণ। এসময় জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা অংশ গ্রহণ করেন।

জেলা আওয়ামীগের সাধারণ সম্পাদকও রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য মো.মুছা মাতব্বর বলেন, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও চাঁদাবাজি বন্ধের দাবিতে আগামী ২৮জানুয়ারি যে মহা সমাবেশের ডাক দেওয়া হয়েছে তাতে প্রায় লক্ষাধিক লোকের সমাগম হতে পারে।

এখানে শুধু আওয়ামী লীগ নয় সর্বস্তরের মানুষ এই সমাবেশে অংশ গ্রহণ করবেন। তিনি আরো বলেন,ওই দিন রাঙামাটির সকল মানুষ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে রাস্তায় নামবেন।

একে/এম

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT