খাগড়াছড়ির মানিকছড়িতে প্রভাব বিস্তারে তিন শীর্ষ সরকারী কর্মকর্তার দ্বন্দ্ব, পরিস্থিতি থমথমে, ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন খাগড়াছড়ির মানিকছড়িতে প্রভাব বিস্তারে তিন শীর্ষ সরকারী কর্মকর্তার দ্বন্দ্ব, পরিস্থিতি থমথমে, ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন – CTG Journal

শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ০৮:২৮ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
লক্ষ্য থাকলে এগিয়ে যাওয়া সহজ হয়: প্রধানমন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বাড়ি নির্মাণের অভিজ্ঞতা নিতে ১৬ কর্মকর্তার বিদেশ সফরের প্রস্তাব করোনাকালে চলছে কোচিং সেন্টার, বন্ধ করল প্রশাসন করোনার পরও লটারিতে ভর্তি চলবে: শিক্ষামন্ত্রী ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিঃ এর উদ্যোগে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় সি.আর.এম উদ্বোধন সাংবাদিক কনক সারওয়ার ও ইলিয়াসসহ ৩৫ জনের ব্যাংক হিসাব তলব প্রায় ৭ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন পাচ্ছে বাংলাদেশ লামা সদর ইউনিয়ন আ.লীগের নতুন সভাপতি জহির, সম্পাদক ক্যাম্রাচিং ও সাংগঠনিক মানিক বড়ুয়া করোনায় একদিনে আরও ৩৯ জনের মৃত্যু পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র সচিব করোনায় আক্রান্ত কেডিএস আক্রোশ থেকে এক অসহায় পরিবারের বাঁচার আকুতি সিঙ্গাপুরে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের অভিযোগে বাংলাদেশি গ্রেফতার
খাগড়াছড়ির মানিকছড়িতে প্রভাব বিস্তারে তিন শীর্ষ সরকারী কর্মকর্তার দ্বন্দ্ব, পরিস্থিতি থমথমে, ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

খাগড়াছড়ির মানিকছড়িতে প্রভাব বিস্তারে তিন শীর্ষ সরকারী কর্মকর্তার দ্বন্দ্ব, পরিস্থিতি থমথমে, ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

জসিম মজুমদার, খাগড়াছড়িঃ খাগড়াছড়ি জেলার মানিকছড়ি উপজেলায় জন প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের তিন শীর্ষ কর্মকর্তার মাঝে প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে বিরোধ সুস্পষ্ট হয়ে উঠেছে। ফলে বিভিন্ন ঘটনা ঘটছে এবং পরিস্থিতি থমথমে হয়ে উঠছে। যেকোন মুহর্তে আইন শৃংখলার ও অবনতির আশংকা করছে এলাকাবাসী।

বিভিন্ন সুত্রে জানা যায়, গত বছরের ১৯ নভেম্বর খাগড়াছড়ি জেলার মানিকছড়ি ও চট্রগ্রাম জেলার ফটিকছড়ি সীমান্তবর্তী নয়াবাজার এলাকায় ফরেনার্স চেকপোষ্ট এর উদ্ধোধন করা হয়। ফরেনার্স চেকপোষ্ট এর একটি অংশে পুলিশ থাকবে এবং অন্য আরেকটি অংশে প্রশাসনের লোক থাকার কথা।

কিন্তু কিছুদিন যাবার পর মানিকছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাইনুদ্দিন খান প্রশাসনের লোকজন থাকার অংশের চাবী চাইলে মানিকছড়ির ইউএনও আহসান উদ্দিন মুরাদ তা প্রদান করতে অস্বীকৃতি জানান। বিরোধের সুত্রপাত এখান হতেই। পরবর্তীতে বিগত ১৬ডিসেম্বর বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানেও উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বক্তৃতা না দিয়ে মাইক সরিয়ে দেন মানিকছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ মাইনুদ্দিন খান।

এই ঘটনার পর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহসান উদ্দিন মুরাদ বিষয়টি জেলা প্রশাসক ও জেলা পুলিশ সুপারকে অবগত করালেও সমাধান আসেনি। এছাড়া গত ১০জানুয়ারী রাতে ওসি মাইনুদ্দিন খানের হাতে মানিকছড়ি সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার তৌফিকুল ইসলাম নাজেহাল হওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

এই বিষয়টিও এখন মানিকছড়ি উপজেলার সবচেয়ে আলোচিত বিষয়। প্রশাসনের শীর্ষ তিন কর্মকর্তার প্রকাশ্যে বিরোধে জড়িয়ে পড়াকে অনেকে দেখছেন অশনি-সংকেত হিসেবে।

ফলশ্রুতিতে গতকাল শনিবার মানিকছড়ি রানী নীহার দেবী সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা রাস্তায় বিক্ষোভ করে। তারা প্রধান শিক্ষক তোফাজ্জল আহম্মদকে ইউএনও লাঞ্চিত করার অভিযোগে ৪৮ঘন্টার মধ্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহসান উদ্দিন মুরাদের অপসারণ দাবী করে।

তবে নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক রাজনৈতিক ব্যক্তি, শিক্ষক, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা অভিযোগ করে বলেছেন এই ঘটনার পিছনেও রয়েছে ওসি মাইনুদ্দিনের রাজনীতি। নানাভাবে একটি গ্রুফকে সংঘবদ্ধ করে ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে ইউএনওর বিরূদ্ধে বিক্ষোভ সমাবেশ করানো হয়েছে।

তাছাড়া ওসি মাইনুদ্দিন খানের সাথে সহকারী পুলিশ সুপারের বিরোধের বিষয়টিও এখন স্পষ্ট। সহকারী পুলিশ সুপার যখন-তখন থানায় যাওয়া, বিভিন্ন বিষয় নিয়ে খোঁজ-খবর নেওয়া ও হস্তক্ষেপ করার কারনে ওসি ও সহকারী পুলিশ সুপারের মাঝে বিরোধের সুত্রপাত। বিষয়টি সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে জন প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের দুরত্ব কমানোর দাবী করেন তারা।

মানিকছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান ম্রাগ্য মারমা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ মাইনুদ্দিন, জেলা পরিষদ সদস্য এম এ জব্বার বলেন মানিকছড়িতে তিন শীর্ষ সরকারী কর্মকর্তাদের আভ্যন্তরিণ দ্বন্ধের কারণে পরিস্থিতি থমমমে। যেকোন মুহর্তে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে পারে। তারা উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বিষয়টি অবহিত করেছেন এবং সুষ্ঠ’ভাবে সমাধানের পরামর্শ দিয়েছেন বলে জানান।

এই প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে তারা আরো বলেন ওসি-ইউএনও দ্বন্ধের পাশাপাশি এখন ওসি-সহকারী পুলিশ সুপারের মাঝে দ্বন্ধ শুরু হয়েছে। এই বিষয়ে মানিকছড়ি সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার তৌীফকুল ইসলাম আইজিপির নিকট লিখিতভাবে অভিযোগও করেছেন।

এই বিষয়ে মানিকছড়ি সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার তৌফিকুল ইসলাম জানান গত ১০ জানুয়ারী মানিকছড়ি সার্কেলের একটি অনুষ্ঠান থেকে ফেরার পথে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা তাকে চট্রগ্রাম রেফার করেন। ১২জানুয়ারী তার বডিগার্ড তাকে জানায় তার অস্ত্র ওসি মাইনুদ্দিন খান নিয়ে গেছে। বিষয়টি জানতে থানায় গেলে ওসি মাইনুদ্দিন তার সাথে খারাপ আচরন করেন। চেইন অব কমান্ড মানেননি।এই কারনে তিনি প্রতিকার চেয়ে আইজিপির নিকট দরখাস্ত করেছেন, তবে এখনো কোন প্রতিকার পাননি।

একই বিষয়ে ভিন্ন কথা বলেন ওসি মাইনুদ্দিন খান। তিনি বলেন সহকারী পুলিশ সুপারের নিকট কোন অস্ত্র থাকেনা। অস্ত্র থাকে বডিগার্ডের নিকট। সহকারী পুলিশ সুপার কর্মস্থলে না থাকলে বডিগার্ড সেই অস্ত্র ব্যবহার করতে পারেনা বিধায় তা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে জমা রাখা হয়েছে।

সহকারী পুলিশ সুপারের সাথে কোন বিরোধ নেই উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন ১০ তারিখে তিনি (সহকারী পুলিশ সুপার তৌফিকুল) রাতে একজনের ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যক্তিগত আক্রোশের জেরে ভাংচুর করেছেন। সেই বিষয়ে পুলিশ সুপারের নিকট দরখাস্তও করেছে ক্ষতিগ্রস্থ ব্যক্তি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে দ্বন্ধের বিষয়ে তিনি আরো বলেন আইন অনুযায়ী ফরেনার্স চেকপোষ্ট এর দায়িত্ব পুলিশের, সেখানে ইউএনও সাহেব কেন হস্তক্ষেপ করছেন, নিজেই বিরোধের সৃষ্টি করছেন-তা তিনিই ভালো বলতে পারবেন।

দ্বন্ধের বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান উদ্দিন মুরাদ বলেন ওসি সাহেব নিজেকে সবচেয়ে ক্ষমতাধর ব্যক্তি মনে করেন। তিনি তার দপ্তরেইতো চেইন অব কমান্ড মানেন না। আমরাতো ওনার কাছে কিছুই না। তিনি গতকাল আমাকে হেয় করার জন্য ছাত্রছাত্রীদের আমার বিরূদ্ধে দাঁড় করিয়েছেন। শিক্ষকদের সাথে আমার অসদাচরণ করার কোন কারন নেই। বিগত ৩০ ডিসেম্বর, ভর্তি পরীক্ষার দিন সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা সম্পন্নের জন্য আমি কড়াকড়ি করেছি। তাছাড়া যদি আমি সেদিন অসদাচরণ করি, তাহলে ২২দিন পরে প্রতিবাদ হবে কেন?

জেলা প্রশাসক মোঃ রাশেদুল ইসলাম বলেন ওসি ও ইউএনওর বিরোধ তদন্তে ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিতে পার্বত্য জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আছেন। তারা তদন্ত প্রতিবেদন দিলে আমরা পরবর্তী কার্যক্রমে যাবো।

পুলিশ সুপার আলী আহমেদ খান বলেন ওসি ও সহকারী পুলিশ সুপারের দ্বন্ধ বিষয়ে দরখাস্ত-পাল্টা দরখাস্ত পাওয়া গেছে। আমরা তদন্ত করে, উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ আলোচনা করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT