মুক্তিযোদ্ধা হতে একাত্তরে বয়স কমপক্ষে সাড়ে ১২ বছর মুক্তিযোদ্ধা হতে একাত্তরে বয়স কমপক্ষে সাড়ে ১২ বছর – CTG Journal

বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১২:০৬ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
বাংলাদেশের বৈদেশিক ঋণ ৪৪ হাজার মিলিয়ন ডলার চন্দ্রপাহাড়ে পর্যটন কেন্দ্র নিয়ে তৃতীয় পক্ষ যাতে সুযোগ নিতে না পারে সেজন্য সর্তক থাকার আহ্বান মাস্ক না পরলে আরও কঠোর হবে সরকার ক্যাম্পাস ছাড়াও বিভাগীয় শহরে হবে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা প্রজেক্ট বিল্ডার্স লিমিটেডের চেক প্রতারণা এমডি ও পরিচালকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা দুর্নীতির মামলা থেকে খালাস ইশরাক হোসেন নাইক্ষ্যংছড়ি থানার আলমগীর হোসেন আবারও জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি মনোনীত কোভিড-১৯: একদিনে ২৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২,৪১৯ কারা ভ্যাকসিন পাবেন, তালিকা করছে সরকার একদিনের ব্যবধানে বেড়েছে করোনা আক্রান্ত, শনাক্ত ২৪২ বিদেশে অর্থ পাচারকারীদের যাবতীয় তথ্য চেয়েছেন হাইকোর্ট ফাইজারের ভ্যাকসিনকে এ সপ্তাহেই ছাড়পত্র দিতে পারে যুক্তরাজ্য
মুক্তিযোদ্ধা হতে একাত্তরে বয়স কমপক্ষে সাড়ে ১২ বছর

মুক্তিযোদ্ধা হতে একাত্তরে বয়স কমপক্ষে সাড়ে ১২ বছর

মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ার বয়সসীমা আরও ছয় মাস কমানো হলো। অর্থাৎ সাড়ে ১২ বছরের গেজেটভুক্ত সবাই মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পাবেন।

মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে বিবেচনার জন্য ন্যূনতম বয়স পুনর্নির্ধারণ করে বুধবার পরিপত্র জারি করেছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। ওই পরিপত্রে বলা হয়েছে, ১৯৭১ সালের ৩০ নভেম্বর যেসব মুক্তিযোদ্ধার বয়স ন্যূনতম ১২ বছর ৬ মাস ছিল, তাঁদের মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে বিবেচনা করা হবে।

এর আগে গত বছরের ১৯ জুন জারি করা পরিপত্র অনুযায়ী মুক্তিযোদ্ধা বিবেচনার ন্যূনতম বয়স ছিল ১৩ বছর। মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ার এই বয়সসীমা দীর্ঘদিন ধরেই বিতর্ক চলছে।
জামুকার ৫০তম সভার কার্যবিবরণীতে মুক্তিযোদ্ধাদের বয়স ছয় মাস প্রমার্জনের বিষয়ে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেওয়া হয়। এরপর সিদ্ধান্ত কার্যকরের ব্যাপারে মতামত জানতে তা প্রস্তাব আকারে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়।
মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসনের পরই বিষয়টি চূড়ান্ত করা হয়েছে।
জামুকার কার্যবিবরণীতে বয়স কমানোর যুক্তি হিসেবে বলা হয়েছে, মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য নির্ধারিত বয়স ১৩ বছর ধার্য করার কারণে অনেকে সরকারি প্রাপ্য সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছেন না। এমন অনেকে আবেদন করেছেন। তাই ‘কেস টু কেস’ বিবেচনা না করে সবার জন্যই এ প্রমার্জনের (বয়সসীমা কমানো) সুযোগ রাখা হবে। মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের চাকরি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি, সম্মানী ভাতা ও সুযোগ-সুবিধার বিষয়টি বিবেচনা করে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য, এ নিয়ে গত ৪৬ বছরে মুক্তিযোদ্ধাদের বয়স, সংজ্ঞা ও মানদণ্ড ১০ বার পাল্টানো হলো।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT