কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল বন্ধ কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল বন্ধ – CTG Journal

শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ০৭:৩০ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
ওআইসি’র পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠক, আলোচনা হবে রোহিঙ্গা ইস্যুতেও আরও ২০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২২৭৩ করোনায় মৃতের সংখ্যা ১৪ লাখ ৩৭ হাজার ছাড়িয়েছে দ্রুত সময়ে ভ্যাকসিন পেতে সরকার সমন্বিত উদ্যোগ নিয়েছে: কাদের নাইক্ষ্যংছড়িতে ৪২ তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা অনুষ্ঠিত লক্ষ্য থাকলে এগিয়ে যাওয়া সহজ হয়: প্রধানমন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বাড়ি নির্মাণের অভিজ্ঞতা নিতে ১৬ কর্মকর্তার বিদেশ সফরের প্রস্তাব করোনাকালে চলছে কোচিং সেন্টার, বন্ধ করল প্রশাসন করোনার পরও লটারিতে ভর্তি চলবে: শিক্ষামন্ত্রী ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিঃ এর উদ্যোগে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় সি.আর.এম উদ্বোধন সাংবাদিক কনক সারওয়ার ও ইলিয়াসসহ ৩৫ জনের ব্যাংক হিসাব তলব প্রায় ৭ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন পাচ্ছে বাংলাদেশ
কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল বন্ধ

কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল বন্ধ

ঘন কুয়াশার কারণে মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। দুর্ঘটনা এড়াতে লঞ্চ ও স্পিডবোট চলাচলও বন্ধ রয়েছে। ভোর ৫টার দিকে কুয়াশার তীব্রতা বাড়লে ফেরিঘাট কর্তৃপক্ষ এ সিদ্ধান্ত নেয়। পারাপার বন্ধ থাকায় ঘাটের উভয় পাড়ে আটকা পড়েছে ৩ শতাধিক যানবাহন।

মাদারীপুরের কাঁঠালাবাড়ি ফেরিঘাটের টিএস কামরুল ইসলাম জানান, সন্ধ্যার পরই কুয়াশার তীব্রতা বাড়তে শুরু করে। এতে এই নৌপথে ফেরি চলাচল ব্যাহত হয়। ৫টার দিকে কুয়াশার তীব্রতা বাড়লে ফেরি চালকদের মার্কিং পয়েন্ট ও বিকন বাতি দেখতে সমস্যা হয়। দুর্ঘটনায় এড়াতে এ নৌ পথে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। এর আগে উভয় ঘাট থেকে ছেড়ে যাওয়া ৬টি ফেরি শতাধিক যানবাহন ও যাত্রী নিয়ে মাঝ নদীতে আটকা পরে। ফেরিগুলো নদীর মাঝে নোঙর করে রাখা হয়েছে।

শিমুলিয়া ঘাটে ফেরি চলাচল বন্ধ হওয়ায় শনিবার সকাল পর্যন্ত যাত্রীদের আটকে থাকতে দেখা গেছে। ঘন কুয়াশার কারণে গত দুই সপ্তাহ ধরে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌপথে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। শুক্র ও শনিবার সরকারি ছুটি থাকায় এ পথে যানবাহনের চাপ বেশি থাকে। ফেরি বন্ধ থাকার কারণে ঘাট এলাকায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) শিমুলিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক গিয়াস উদ্দিন পাটোয়ারী জানান, শুক্রবার দিবাগত মধ্যে রাত থেকেই কুয়াশার ঘনত্ব বাড়তে থাকে। এতে পানি পর্যন্ত দেখা যাচ্ছিল না। দুর্ঘটনা এড়াতে রাতেই সব ফেরি বন্ধ করে দেওয়া হয়। ওই সময় দুইটি রো রো, কে-টাইপ ও ড্রাম্পসহ মোট ছয়টি ফেরি মাঝ পদ্মায় নোঙর করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT