রামগড়ে চালুর অপেক্ষায় হিলটেক্টস ডিস্ট্রিলারিজ লিমিটেডের মদ তৈরীর কারখানা, এলাকাবাসীর ক্ষোভ প্রকাশ রামগড়ে চালুর অপেক্ষায় হিলটেক্টস ডিস্ট্রিলারিজ লিমিটেডের মদ তৈরীর কারখানা, এলাকাবাসীর ক্ষোভ প্রকাশ – CTG Journal

মঙ্গলবার, ০৪ অগাস্ট ২০২০, ০৮:০৫ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
করোনা মোকাবেলায় এডিবি’র প্রতিশ্রুতি ৯৩০ কোটি ডলারে পৌঁছেছে পাপিয়ার বিরুদ্ধে দুদকের মামলা পাটকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে চট্টগ্রামে করোনায় আরও এক চিকিৎসকের মৃত্যু সাবেক সেনা কর্মকর্তা হত্যা: তদন্ত কমিটির কাজ শুরু বাংলাদেশে করোনার ১৫০তম দিন: আরও ৫০ জনের মৃত্যু চট্টগ্রামে বৃষ্টি হলেও ভ্যাপসা গরম কাটেনি, সমুদ্রবন্দর গুলোতে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত চসিকের প্রশাসকের দায়িত্ব পেলেন আ’লীগ নেতা খোরশেদ আলম সুজন ৬৪ কোটি টাকা ব্যয়ে তুলা উৎপাদন বাড়ানোর উদ্যোগ রামগড়ে গলায় ফাঁস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা ‘কোভিড মোকাবিলায় জাদুকরি কোনও সমাধান নেই, কখনও নাও মিলতে পারে’ গণস্বাস্থ্যের অ্যান্টিবডি কিটের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত
রামগড়ে চালুর অপেক্ষায় হিলটেক্টস ডিস্ট্রিলারিজ লিমিটেডের মদ তৈরীর কারখানা, এলাকাবাসীর ক্ষোভ প্রকাশ

রামগড়ে চালুর অপেক্ষায় হিলটেক্টস ডিস্ট্রিলারিজ লিমিটেডের মদ তৈরীর কারখানা, এলাকাবাসীর ক্ষোভ প্রকাশ

মো: নিজাম উদ্দিন, রামগড় || জেলার রামগড়ে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন (বিসিক) নিয়ন্ত্রনাধীন হিলটেক্টস ডিস্ট্রিলারিজ লিমিটেড নামে মদ তৈরীর কারখানাটি দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর আবারো চালুর প্রক্রিয়া চলছে।

বিসিক ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ২০০৩ সালে চালু হওয়া কারখানাটিতে স্থানীয় পাহাড়ীদের তৈরীকৃত দেশী মদ সংগ্রহ পূর্বক সেগুলোকে বৈজ্ঞানিক উপায়ে পরিশোধন করে বিভিন্ন কেমিকেল যোগ করার পর বোতলজাত করে বিপনন করা হতো দেশের নামীদামী অভিজাত পাঁচ তারকা হোটেলে। কিন্তু বেশ কিছুদিন চলার পর নিয়ম না মেনে মদ উৎপাদন করায় এবং মদ বাহিরে পাচার হওয়ায় কারখানাটি সরকার সিলগালা করে দেয় ফলে মালিকপক্ষ এ পরিকল্পনা থেকে পিছু হটলে ২০০৮ সাল থেকে বন্ধ রয়েছে কারখানাটির উৎপাদন কার্যক্রম।

বর্তমানে বিসিকের নিয়ন্ত্রনে সরকারী পৃষ্টপোষকতায় আবারো সেটি চালু করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানান, আয়োডিন যুক্ত লবন প্রকল্পের পরিচালক ও মহাব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মোঃ শফিকুল আলম।

শুক্রবার সন্ধ্যায় রামগড় হিলটেক্স ডিস্ট্রিলারিজ লিঃ এর কারখানা পরিদর্শনে এসে এসব তথ্য জানান তিনি।

এসময় তিনি আরো জানান, প্রকল্পটি চালু হলে স্থানীয় উৎপাদকদের কাছ থেকে আমরা খুচরা বিপনন নিষেধ শর্তে দেশী মদ সংগ্রহ করবো তখন স্বাভাবিক ভাবে রামগড়ে দেশীয় মদের ভয়াবহতা হ্রাস পাবে।

এসময় অন্যান্যর মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন বিশ্বব্যাংকের কনসালটেন্ট, প্রকৌশলী মোঃ সিরাজুল হক, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এটিএম মোর্শেদ, রামগড় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারেক মোঃ আব্দুল হান্নান প্রমুখ।

বন্ধ হওয়া কারখানাটি আবারো চালু হওয়ার খবরে এলাকাবাসী ক্ষোভ প্রকাশ কওে বলেন, এটি চালু করা হলে এলাকায় মাদকের ব্যবহার আরো অনেকগুন বেড়ে যাবে। এমনিতেই রামগড় উপজেলা সীমান্তবর্তী হওয়ায় স্থানীয় দেশীয় মদ, ভারতীয় মদ, ফেনসিডিল ও ইয়াবা সহজলভ্য হওয়ায় মাদকসেবীদের কাছে সহজেই পৌঝে যাচ্ছে এতে করে মাদকহেযসীদের সংখ্যা দিনদিন বেড়েই চলেছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT