তথ্যপ্রযুক্তিতে পঞ্চমবারের মতো ডব্লিউএসআইএস পুরস্কার পেয়েছে বাংলাদেশ তথ্যপ্রযুক্তিতে পঞ্চমবারের মতো ডব্লিউএসআইএস পুরস্কার পেয়েছে বাংলাদেশ – CTG Journal

শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ১২:১৫ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
শুক্রবার চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত ৮১ সুশাসন প্রতিষ্ঠায় ব্যারিস্টার রফিক উল হকের অবদান অনস্বীকার্য স্থল নিম্নচাপ দেশের মধ্যাঞ্চলে, আজও হতে পারে ভারী বৃষ্টি ব্যারিস্টার রফিক উল হক আর নেই আকবরশাহ’তে ছুরি চাপাতিসহ ২ যুবক গ্রেফতার ফেনীতে কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ, গ্রেফতার ১ মানিকছড়ি পূজামন্ডবে দুশতাধিক গরীব দুঃস্থর মাঝে বস্ত্র বিতরণ নিম্নচাপ উপকূল অতিক্রম করেছে, সকালে আবহাওয়ার উন্নতি হতে পারে ফাঁদে ফেলে ১৩ বছর ধরে ধর্ষণের অভিযোগ জেলা পরিষদের শিক্ষাবৃত্তি পেল ৩২৪ শিক্ষার্থী সংকটাপন্ন অবস্থাতেই ব্যারিস্টার রফিক উল হক সাজেক মসজিদ-রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদের একটি জনবান্ধব প্রকল্প
তথ্যপ্রযুক্তিতে পঞ্চমবারের মতো ডব্লিউএসআইএস পুরস্কার পেয়েছে বাংলাদেশ

তথ্যপ্রযুক্তিতে পঞ্চমবারের মতো ডব্লিউএসআইএস পুরস্কার পেয়েছে বাংলাদেশ

তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বিশ্বের সবচেয়ে সম্মানজনক পুরস্কার ‘ওয়ার্ল্ড সামিট অন ইনফরমেশন সোসাইটি (ডব্লিউএসআইএস) পুরস্কার-২০১৮’ অর্জন করেছে বাংলাদেশ। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রোগ্রাম থেকে বাস্তবায়িত ‘মুক্তপাঠ’ নামের উদ্ভাবনী প্রকল্পের জন্য এই পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার সুইজাল্যান্ডের জেনেভায় এ পুরস্কার প্রদান করা হয়।

‘মুক্তপাঠ’ হচ্ছে জাতীয় পর্যায় একটি ই-লার্নিং প্ল্যাটফর্ম। এর মাধ্যমে যুব সমাজ, নারী, পেশাদার ব্যক্তি ও প্রবাসী কর্মীসহ সমাজের বিভিন্ন স্তরের ব্যক্তিরা শিক্ষিত ও প্রশিক্ষিত হতে পারবেন।

এছাড়া এটুআই প্রোগ্রামের সার্ভিস ইনোভেশন ফান্ডের সহায়তায় এবং ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের বাস্তবায়নে তৈরি ‘অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম’ এর জন্যে বাংলাদেশ পুলিশ ও এটুআই প্রোগ্রাম যৌথভাবে ডব্লিউএসআইএস পুরস্কার অর্জন করেছে।

‘জনগণের দোরগোড়ায় সেবা’ স্লোগানকে সামনে রেখে বঞ্চিতদের কাছে সেবা পৌঁছে দেওয়ার মধ্য দিয়ে পরপর পাঁচবার জেনেভায় আন্তর্জাতিক টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়নের (আইটিইউ) ডব্লিউএসআইএস ফোরামে এটুআই প্রোগ্রাম এই সম্মাননা অর্জন করলো। ডব্লিউএসআইএস হচ্ছে আইসিটি প্রয়োগের মাধ্যমে উন্নয়ন বিষয়ে বিশ্বের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং বৃহত্তম প্লাটফর্ম যার মাধ্যমে আইসিটি প্রয়োগ করে সবাইকে অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে এবং নিশ্চিত করা হচ্ছে যেন কেউ পিছিয়ে না পরে।

এক দশক আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন ২০২১ এর ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের অঙ্গীকারের মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশকে একটি জ্ঞানভিত্তিক অর্থনীতি হিসেবে গড়ে তোলার কাজ শুরু হয়। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার এই কার্যক্রম ২০১৪ সালে আইটিইউ এর নজরে আসে এবং সেই বছর তারা দেশব্যাপী ইউনিয়ন পর্যায় ডিজিটাল সেন্টার বাস্তবায়ন প্রকল্পকে ডব্লিউএসআইএস পুরস্কার।

তখন থেকে এ পর্যন্ত এটুআই প্রোগ্রাম তার ১২টি উল্লেখযোগ্য প্রকল্পের জন্যে ডব্লিউএসআইএস পুরস্কার অর্জন করেছে। তার মধ্যে রয়েছে- ‘জাতীয় তথ্য বাতায়ন’ যেখানে সরকারের ৪৩ হাজার অফিসকে এক ছাতার নিচে আনা হয়েছে। ‘ডিজিটাল টকিং বুক’-এর মাধ্যমে ১০০টির বেশি প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্কুলে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের মাঝে তাদের জন্যে অভিগম্য বই প্রদান করা হয়েছে (যা প্রতি বছর ৩১ ডিসেম্বর জাতীয় পাঠ্যপুস্তক দিবসে প্রধানমন্ত্রীর হাত দিয়ে বিতরণ করা হয়)। ‘ই-নথি’ সিস্টেম যার মাধ্যমে সরকারি অফিসের নথি ব্যবস্থাপনাকে ডিজিটাল করা হচ্ছে। ‘নাগরিক সেবায় উদ্ভাবন আনয়নে সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার’ বাড়িয়ে সরকারকে জনগণের আরও কাছে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। ২০১৪ থেকে ২০১৮ এর মধ্যে ডব্লিউএসআইএস পুরস্কার প্রাপ্ত অন্যান্য প্রকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে- ‘গ্রামীণ পর্যায় টেলিমেডিসিন সেবা’, ‘সেবা প্রক্রিয়া সহজিকরণ’, ‘অনলাইনে পরিবেশ ছাড়পত্র’, ‘শিক্ষক বাতায়ন’, এবং উদ্ভিদ সমস্যা শনাক্তকরণে ‘কৃষকের জানালা’।

নাগরিক সেবা উদ্ভাবনে সাউথ-সাউথ কো-অপারেশন বিষয়ে বাংলাদেশ নেতৃত্ব প্রদান করছে এবং বিশ্বের প্রথম সাউথ-সাউথ নেটওয়ার্ক ফর পাবলিক সার্ভিস ইনোভেশন (এসএসএন৪পিএসআই) তৈরি ও উদ্বোধন করেছে যার সচিবালয় রয়েছে জাতিসংঘের সাউথ-সাউথ কো-অপারেশন (টঘঙঝঝঈ) এর ব্যাংকক কার্যালয়ে।

এটুআই প্রোগ্রাম ডব্লিউএসআইএস পুরস্কারটি বাংলাদেশের মুক্তির সংগ্রামের অমর শহীদদের প্রতি উৎসর্গ করছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তার আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সাজিব ওয়াজেদ জয়ের প্রতি দিক-নির্দেশনা, প্রেরণা ও সহায়তার জন্য কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করেছে।

ডব্লিউএসআইএস পুরস্কারটি আইটিইউ’র সেক্রেটারি জেনারেল হাওলিন ঝাঁও এর কাছ থেকে গ্রহণ করেন এটুআই প্রোগ্রামের প্রকল্প পরিচালক এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন)। সঙ্গে ছিলেন এটুআই এর পলিসি অ্যাডভাইজার আনির চৌধুরী, পলিসি স্পেশালিস্ট (শিক্ষা ইনোভেশন) আফজাল হোসেন, ড. রমিজ উদ্দিন, পলিসি অ্যাসোসিয়েট শাহনুর সাব্বির। অনলাইন পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট উদ্যোগের জন্য ডব্লিউএসআইএস পুরস্কার গ্রহণ করেন বাংলাদেশ পুলিশের পক্ষ থেকে ডেপুটি ইন্সপেক্টর জেনারেল হারুন অর রশিদ ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (আইসিটি) মোঃ রুহুল আমিন। সূত্র: বাসস।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT