শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে এসে জামাইয়ের রহস্যজনক মৃত্যু শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে এসে জামাইয়ের রহস্যজনক মৃত্যু – CTG Journal

বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০৩:০৭ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
যেকোনও হুমকি মোকাবিলায় সেনাবাহিনীকে সতর্ক থাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর চন্দ্রঘোনা থানা পুলিশের অভিযানে ২শ লিটার মদসহ আটক ১ ইরফান ও জাহিদের বিরুদ্ধে আরও ৪ মামলা রামু-গর্জনিয়ায় পুলিশের সাথে ব্যবসায়ীদের মতবিনিময় লাখ টাকায় প্রতিদিন লাভ ১৩০০! গ্রেফতার ৩ প্রকল্পের বিরুদ্ধে মামলা হলে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা: প্রধানমন্ত্রী বান্দরবান হবে দেশের ৬৪ জেলার মধ্যে শ্রেষ্ঠ জেলা- পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর কাপ্তাইয়ে বজ্রপাত প্রতিরোধে ৫ হাজার তালবীজ রোপণ কর্মসূচীর উদ্বোধন করলেন জেলা প্রশাসক কোভিড-১৯: দেশে একদিনে আরও ২০ জনের মৃত্যু সীমান্ত রক্ষার পাশাপাশি দুস্থদের জন্য কাজ করছে বিজিবি লোগাং জোন বিজিবি লোগাং জোন সীমান্ত রক্ষার পাশাপাশি দুস্থদের জন্য কাজ করছে নুরসহ ছয় জনের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন ১২ নভেম্বর
শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে এসে জামাইয়ের রহস্যজনক মৃত্যু

শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে এসে জামাইয়ের রহস্যজনক মৃত্যু

কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলায় শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে এসে জামাইর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। গতকাল রবিবার রাতে উপজেলার নবীপুর পশ্চিম ইউনিয়নের চৌধুরীকান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মৃত ওই জামাইয়ের নাম মানিক মিয়া (৩৫)। তিনি পার্শ্ববর্তী দেবিদ্বার উপজেলার খলিলপুর গ্রামের মুতু মিয়ার ছেলে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসা বাদের জন্য স্ত্রী ফরিদা বেগম ও শ্বশুর তছলিম উদ্দিনকে আটক করেছে পুলিশ।

মৃতের বড় ভাই মামুন বলেন, গতকাল রবিবার রাতে ফল নিয়ে শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে যান মানিক। আজ সোমবার সকাল ১০টায় মানিকের শ্বশুর বাড়ির স্থানীয় মেম্বার মোস্তফা বলেন, ‘তোমার ভাই বিষ খেয়ে মারা গেছে।’ আমার সুস্থ সবল ভাই বিষ খাওয়ার কোনো কারণই আমরা দেখছি না। তাকে তার শ্বশুর বাড়ির লোকজন মেরে মুখে বিষ ঢেলে দিয়েছে। এর আগেও তারা তাকে মেরে ফেলার চেষ্টা করেছে। আমরা মানিকের স্ত্রী ও তার শ্বশুর বাড়ির লোকজরকে অভিযুক্ত করে মামলা দেওয়ার জন্য থানায় আসছি।

মানিকের শ্যালক ইকরামের স্ত্রী বলেন, ‘গত ছয় মাস মানিক আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন না। আজ সোমবার সকালে শুনলাম মানিক বিষ খেয়ে আমাদের এলাকায় পড়ে আছেন। স্থানীয় লোকজন তাকে হাসপাতালে নিলে ওখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।’

জানা যায়, নিহত মানিক মালদ্বীপ থাকাকালে স্ত্রীর অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠাতেন। সেই টাকা দিয়ে বাপের বাড়ির এলাকায় জমি কেনার জন্য তাকে চাপ সৃষ্টি করেন স্ত্রী ফরিদা। একপর্যায়ে রাজি হন এই শর্তে যে, জমি মানিকের নামে রেজিস্ট্রি করতে হবে। শর্তে রাজি হয়ে টাকা পেয়ে স্বামীর নামে রেজিস্ট্রি না করে নিজের নামেই করেন। এই খবর শুনে মানিক বিদেশ থেকে দেশে ফিরে দেন দরবার করে আবার স্ত্রীর কাছ থেকে নিজের নামে জমি লিখে নেন। এই থেকেই তাদের সংসারে কলহ সৃষ্টি হয়।

এই সূত্রে গত বছরের আগস্ট মাসে তার শ্বশুর বাড়ির লোকজন তাকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করলে সেই থেকে তিনি তার স্ত্রী সন্তান ও শ্বশুর বাড়ির লোকজনের সঙ্গে যোগাযোগ ছিন্ন করেন মানিক। তার শ্বশুর বাড়ির লোকজন জমিটি দখল করেছেন শুনে মানিক আবার স্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ করলে তার স্ত্রী তাকে শ্বশুর বাড়িতে আসতে বলেন।

এ বিষয়ে মুরাদনগর থানার ওসি (তদন্ত) অরজুন মিয়া বলেন, ‘মানিকের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জেলার হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্ত্রী ফরিদা ও শ্বশুর তছলিম উদ্দিনকে আটক রেখেছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT