গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বানানো রোবট দেবে চিকিৎসা সেবা গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বানানো রোবট দেবে চিকিৎসা সেবা – CTG Journal

বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৪২ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
জাজিরা এয়ারওয়েজের ফ্লাইটে কুয়েত প্রবাসীর মৃত্যু, সন্ধান মেলেনি পরিবারের বৈরী আবহাওয়ায় সেন্টমার্টিনে আবারও আটকা দু’শতাধিক পর্যটক কুষ্টিয়ায় ২২ দিনে ধর্ষণের অভিযোগে ৮ মামলা মেশিন ছুঁলেই ৪২ পরীক্ষার রিপোর্ট: চিকিৎসার নামে অভিনব প্রতারণা, ভুয়া ডাক্তার গ্রেপ্তার অন্তঃসত্ত্বা নারীকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ, গ্রেফতার ৩ সাগরে নিম্নচাপ, অতি ভারী বৃষ্টির সতর্কতা চট্টগ্রামে ১৪ মাদকসেবীকে দণ্ড বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটূক্তি, ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা নাইক্ষ্যংছড়ির পাহাড়ে সবজি চাষে করে স্বাবলম্বী সানু বড়ুয়া অস্ত্র ঠেকিয়ে প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ, যুবলীগ নেতা গ্রেফতার নিক্সন চৌধুরীর জামিন আপিলেও বহাল সুরঞ্জিত সেন হত্যাচেষ্টা মামলা: বাবর-আরিফকে আসামি করে অভিযোগ গঠন
গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বানানো রোবট দেবে চিকিৎসা সেবা

গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বানানো রোবট দেবে চিকিৎসা সেবা

মানুষের শরীরের তাপমাত্রা পরিমাপ, রোগীর সব তথ্য ডাক্তারকে পাঠানোসহ একজন নার্সের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালনে সক্ষম রোবট উদ্ভাবন করেছেন গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল (সিএসই) বিভাগের শেষ বর্ষের চার ছাত্রী বিভাগীয় প্রজেক্টের অংশ হিসেবে প্রায় ৪০ হাজার টাকা ব্যয়ে এই রোবট বানিয়েছেন। বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকালে সিএসইর বিভাগীয় প্রধান করম নেওয়াজ এবং সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীরা বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

রোবটটির নাম দেওয়া হয়েছে অ্যাভওয়ার (ABHWR)। এর পূর্ণ রূপ ‘Advanced Biopola Humanoid Walking Robot’। কাজটিতে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীরা হলেন দল নেতা দুর্গা প্রামানিক এবং মৌসুমি কণা, সুমনা আক্তার ও আফরিন আহমেদ বৃষ্টি।

রোবটটির বিশেষত্ব সম্পর্কে শিক্ষার্থীরা বলেন, নার্সের কাজ ছাড়াও যেকোনও অফিসে এটি রিসেপশনিস্ট হিসেবে কাজ করতে পারবে। একইসঙ্গে অনলাইনে বিভিন্ন কাজেও সক্ষম রোবটটি। রোবটটিতে ব্লুটুথ সংযোগ থাকায় অফলাইনেও এটি কাজ করতে পারবে বলে জানান শিক্ষার্থীরা। এছাড়া হাঁটা-চলা ও কথা বলতেও সক্ষম বিশেষ এই রোবট।

সংশ্লিষ্টরা বলেন, এ বছরের ২৫ জানুয়ারি ক্যাম্পাস সংলগ্ন একটি পরীক্ষাগারে রোবট বানানোর কাজ শুরু হয়্ তবে করোনার কারণে তিন মাস বিলম্বের পর সেপ্টেম্বরের ৯ তারিখ কাজ শেষ হয়। এরপর বেশকিছু প্রক্রিয়া শেষে ২১ সেপ্টেম্বর এটি নিজ বিভাগে উন্মুক্ত করা হয়।

নার্স রোবট বানানোর প্রজেক্ট সুপারভাইজার ছিলেন সিএসই বিভাগের শিক্ষক শেলিয়া রহমান। কো-সুপারভাইজার হিসেবে কাজ করেন একই বিভাগের শিক্ষক রোয়িনা আফরোজ অ্যানি। এছাড়া প্রযুক্তিগত সহায়তা দেন উজ্জ্বল সরকার, যিনি সাম্প্রতিককালে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন উদ্ভাবনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছেন।

বিভাগের প্রধান মো. করম নেওয়াজ বলেন, ডিপার্টমেন্ট থেকে শেষ সেমিস্টারের শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রজেক্ট দেওয়া হয়। সে অনুযায়ী এই ধরনের চমৎকার কাজগুলো শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে উঠে আসে। আমাদের শিক্ষার্থীরা অসাধারণ কর্মদক্ষতার অধিকারী, যার প্রমাণ এই উদ্ভাবন। এটাকে ডেভেলপ করতে আরও কিছু কাজ চলছে। রোবটটির পেছনে যারা কাজ করেছে, তারা প্রত্যেকেই মেয়ে। মেয়েরা যে কোনও অংশে পিছিয়ে নেই, এটা তার প্রমাণ।

প্রসঙ্গত, গত বছরের অক্টোবরে একই বিভাগের ছয় শিক্ষার্থী রোবট ‘মিরা’ বানান। যা ওই সময় দেশব্যাপী দারুণ আলোড়ন সৃষ্টি করতে সক্ষম হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT