চট্টগ্রামে বিএনপির অবস্থান কর্মসূচিতে শামীম-ক্ষমতায় ঠিকে থাকতে সরকার দেশকে অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করেছে চট্টগ্রামে বিএনপির অবস্থান কর্মসূচিতে শামীম-ক্ষমতায় ঠিকে থাকতে সরকার দেশকে অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করেছে – CTG Journal

মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১২:৩৮ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নামে ভুয়া ওয়েবসাইট খুলে পণ্য খালাসের চেষ্টা! হাজী সেলিমের ছেলে ও দেহরক্ষীর বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা মামলা হাজী সেলিমের ছেলের বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ, অপরাধীকে আইনের আওতায় আনার আশ্বাস স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নৌবাহিনী কর্মকর্তাকে মারধর: হাজী সেলিমের ছেলে গ্রেপ্তার ১৯৩৮ সালেই বিচার বিভাগ আলাদা করার দাবি করেছিলেন শেরে বাংলা দেশে করোনার সংক্রমণ ৪ লাখ ছাড়াল খাগড়াছড়িতে এক হাতে গাছের চারা, অন্য হাতে লাল কার্ড নিয়ে ধর্ষণ বিরোধী শপথ চবিতে আগের নিয়মেই ভর্তি পরীক্ষা ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশের এএসআই আটক রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে জাপানের সহায়তা চেয়েছে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষকদের সব ধরনের বদলি বন্ধ নাইক্ষ্যংছড়িতে করোনায় ক্ষতি গ্রস্তকৃষকদের প্রণোদনার চেক বিতরণ
চট্টগ্রামে বিএনপির অবস্থান কর্মসূচিতে শামীম-ক্ষমতায় ঠিকে থাকতে সরকার দেশকে অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করেছে

চট্টগ্রামে বিএনপির অবস্থান কর্মসূচিতে শামীম-ক্ষমতায় ঠিকে থাকতে সরকার দেশকে অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করেছে

নিজস্ব প্রতিবদক || বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম বলেছেন, ক্ষমতায় ঠিকে থাকতে সরকার দেশকে অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করেছে। মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকারও এখন কারাবন্দি। আওয়ামী অপশাসনে সারাদেশের জনগণ এখন বন্দি শিবিরে আটকানো। বাংলাদেশকে একটি নতজানু রাষ্ট্রে পরিণত করার চক্রান্ত করছে সরকার।

তিনি বৃহস্পতিবার (৮ মার্চ) সকালে নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয় মাঠে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি আয়োজিত কেন্দ্র ঘোষিত অবস্থান কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। এতে তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশে গণতন্ত্র আজ প্রায় মৃত। বিএনপি যে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করছে তা শুধু বেগম জিয়ার মুক্তি জন্য নয়, এ আন্দোলন গণতন্ত্র পুন:রুদ্ধারের জন্য, মানুষের মুক্তির জন্য, দেশকে ফ্যাসিস্ট আওয়ামী লীগ সরকারের হাত থেকে মুক্তির জন্য। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার অনির্বাচিত সরকার, তাদের অধীনে কোন নির্বাচন হতে পারে না। বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের সব মামলা প্রত্যাহার ও গণতান্ত্রিক পরিবেশে নির্বাচন দিতে হবে।

সেই নির্বাচনে বিএনপিসহ সব রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করবে। তিনি সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বেগম জিয়াকে মুক্ত করে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবী আদায় করে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠায় সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানান।
নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর বলেন, মিথ্যা মামলায় খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়ে কারাগারে রেখেছে সরকার। এখন তার জামিনও বিলম্বিত করানো হচ্ছে। বেগম জিয়ার জামিন বিলম্বিত করে সরকার বিএনপিকে সংঘাতময় রাজনীতির দিকে ঠেলে দিতে চাইছে। কিন্তু বিএনপি সংঘাতের রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না বলেই ধৈয্য ধারণ করে নিয়মতান্ত্রিক সুশৃংঙ্খল আন্দোলন করে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, আমরা বেগম জিয়ার বিরুদ্ধে অন্যায় সাজা দেওয়ার প্রতিবাদে শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন, গণস্বাক্ষর, বিক্ষোভ, অবস্থান, অনশন কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছি। কিন্তু সরকার তাতেও বাধা প্রদান করছে। সরকার বেগম জিয়াকে কারাগারে রেখেও ভয় কাটেনি, এখন বিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিকেও ভয় পাচ্ছে। তিনি, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন চট্টগ্রামের কোতোয়ালী থানার মামলায় হাইকোর্ট থেকে জামিন লাভ করলেও ফেনী থেকে আমদানী করা আর একটি মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। তার জামিন বিলম্বিত করতেই সরকার এ ধরনের ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছে।

আমরা চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির পক্ষ থেকে এই ন্যাক্কারজনক ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। তিনি বেগম জিয়ার মুক্তির দাবীতে আগামী ১৫ মার্চ বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম মহানগর, উত্তর ও দক্ষিণ জেলা বিএনপির উদ্যোগে নগরীর লালদীঘির মাঠে জনসমাবেশ সর্বাত্মক সফল করার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানান।
চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব আবু সুফিয়ানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অবস্থান কর্মসূচিতে তিনি বলেন, বিভিন্ন কলাকৌশল করে বেগম জিয়ার মুক্তি বিলম্বিত করছে এই অবৈধ সরকার।

সম্পূর্ণ মিথ্যা মামলা দিয়ে তাকে আটকিয়ে রাখা হয়েছে। সাংবিধানিকভাবে তার যে আইনী অধিকার তা থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। বেগম খালেদা জিয়াকে বন্দি রেখে আর একটি প্রহসনের নির্বাচনের স্বপ্ন দেখেছে অবৈধ সরকার। কিন্তু তাদের সেই স্বপ্ন কখনো পূরণ হতে দিবে না মুক্তিকামি জনগণ। তিনি বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব লায়ন আসলাম চৌধুরী এবং চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেনসহ গ্রেফতারকৃত নেতাকর্মীদের অবিলম্বে নি:শর্ত মুক্তির দাবী জানান।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর মহানগর বিএনপির সহসভাপতি আলহাজ্ব এম এ আজিজ, মোহাম্মদ মিয়া ভোলা, হাজী মো. আলী, হারুন জামান, সৈয়দ আহমদ, মাহবুব আলম, নিয়াজ মোহাম্মদ খান, কামাল উদ্দিন কন্ট্রক্টর, অধ্যাপক নুরুল আালম রাজু, এস এম আবুল ফয়েজ, এম এ হান্নান, যুগ্ম সম্পাদক এস এম সাইফুল আলম, কাজী বেলাল উদ্দিন, মো. শাহ আলম, ইসকান্দর মির্জা, আর. ইউ. চৌধুরী শাহিন, ইয়াছিন চৌধুরী লিটনসহ নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT