সাতক্ষীরা ও যশোরে আমের ক্ষতি শত কোটি টাকা সাতক্ষীরা ও যশোরে আমের ক্ষতি শত কোটি টাকা – CTG Journal

বুধবার, ২৭ মে ২০২০, ১২:২০ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
খালেদা জিয়ার সঙ্গে মান্নার সাক্ষাৎ ২৪ ঘণ্টায় ১১টি ল্যাবে করোনা পরীক্ষা হয়নি মোবাইল ব্যাংকিংয়ে ঈদের সালামি মানিকছড়িতে রসালো ফলের বাম্পার ফলন, বাজারজাত সুবিধা না থাকায় নষ্ট হচ্ছে লিচুর বাহার যেসব অনলাইন বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করে তারা রেজিস্ট্রেশন পাবে: তথ্যমন্ত্রী ভ্যাট রিটার্ন দেওয়া যাবে ৯ জুন পর্যন্ত মানিকছড়িতে ‘করোনা’ উপসর্গ নিয়ে গার্মেন্টস কর্মীর মৃত্যু স্বচ্ছতা আনতে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চালের বস্তায় স্টেনসিল কোলাহল শূন্য চট্টগ্রামের ঈদ বিনোদন কেন্দ্র কাপ্তাইয়ে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা পাচ্ছে ৬২৫০ জন ‘বারবার আমরা বলেছি, ত্রাণ দিতে হবে না ভালো একটা বাঁধ করে দেন’ একদিনে আরও ২১ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ১১৬৩
সাতক্ষীরা ও যশোরে আমের ক্ষতি শত কোটি টাকা

সাতক্ষীরা ও যশোরে আমের ক্ষতি শত কোটি টাকা

সঠিকভাবে ক্ষতির পরিমাণ নিরূপণ হলে এ অংক আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন চাষি ও ব্যবসায়ীরা।ঝড়ে পড়ে যাওয়া আম এখন খুবই কমদামে বাজারে বিক্রি হচ্ছে যশোরের বাজারে।

ঘূর্ণিঝড় আম্পানের কারণে যশোর ও সাতক্ষীরায় আমের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। আম চাষি ও ব্যবসায়ীদের দাবি, আম্পানের কারণে এ অঞ্চলে প্রায় ১০০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। তবে সঠিকভাবে ক্ষতির পরিমাণ নিরূপণ হলে এ অংক আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তারা।

ঝড়ে পড়ে যাওয়া আম বিক্রি করতে যশোর ও সাতক্ষীরার সীমান্তবর্তী এলাকা বাগুরি বেলতলা বাজারে আসা ব্যবসায়ী ও চাষিরা বলছেন, ঝড়ে অন্তত ১৫ ক্যারেট আম নষ্ট হয়েছে; যার বাজার মূল্য অন্তত ১০০ কোটি টাকা। প্রতি ক্যারেটে আম থাকে ২০ কেজি করে।

বাগুরি বাজারের পাইকারী আম বিক্রেতা জয়েন্ট এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী আল-উজায়ের সুজন জানান, তার ১০টি পাইকারী বিক্রেতাসহ আমচাষিদের ক্ষতি হয়েছে অন্তত দুই কোটি টাকা। 

‘আমার জানা মতে যশোর এবং সাতক্ষীরায় যেসব আমের আড়ৎ রয়েছে, সেখানে যারা পাইকারী সংগ্রহ করেন এমন ১০০টি আড়তে ক্ষতি হয়েছে অন্তত ১০০ কোটি টাকা’ বললেন আল উজায়ের সুজন।
বাগুরি বেলতলা বাজারে ঝড়ে পড়া আম গত দুই দিন ধরে বিক্রি হচ্ছে মান ও জাতভেদে ৫০ থেকে আড়াইশত টাকা মণ দরে। 

উজায়ের জানান, যশোর ও সাতক্ষীরার বিভিন্ন গ্রামের পাশাপাশি এ সব আম আসছে; নারীপুকুর, ইলিশপুর, ধন্যতলা, মাতযুসহ বিভিন্ন গ্রাম থেকে।

এ বাজারে যে হিমসাগর আম গত মৌসুমে বিক্রি সাড়ে হয়েছে সাড়ে তিন হাজার টাকা মণ দরে, সেই আম এখন মান ও আকারভেদে এখন বিক্রি হচ্ছে আড়াইশত টাকা মণ দরে। আর আম্রপালী বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা মণ।

সাতক্ষীরার আম চাষি সামছুর রহমান জানান, ঝড়ে আম পড়ে যাওয়ায় তার ক্ষতি হয়েছে প্রায় সাত লাখ টাকা। 

‘দাম পড়ে যাওয়ার পর মাত্র দুইশ টাকা দরেও দুই মণ আম বিক্রির ক্রেতা পাচ্ছি না’ আক্ষেপ সামছুরের। 

যশোর এলাকার চাষি আজিজুল হক জানান, তার ক্ষতি হয়েছে ১০ লাখ টাকারও বেশি। সাত লাখ টাকায় আম বাগান কিনেছেন চারটি। ঝড়ে ওই চার বাগানের সব আম পড়ে গেছে।

তিনি বলেন,’যাদের কাছ থেকে বাগান কিনেছি তারা তো আর এ টাকা আর ফেরত দেবে না। তবে সরকারি প্রণোদনা পেলে ক্ষতি কিছুটা পুষিয়ে উঠা সম্ভব।’

প্রশাসনিক কর্মকর্তারা জানান, আম চাষিদের এ ক্ষতি তারা বিবেচনায় নিয়েছেন। বিষয়টি সরকারকে জানানো হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT