ঈদের আনন্দের চেয়ে বেঁচে থাকাই বড় চ্যালেঞ্জ ঈদের আনন্দের চেয়ে বেঁচে থাকাই বড় চ্যালেঞ্জ – CTG Journal

মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ১০:১৫ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
খালেদা জিয়ার সঙ্গে মান্নার সাক্ষাৎ ২৪ ঘণ্টায় ১১টি ল্যাবে করোনা পরীক্ষা হয়নি মোবাইল ব্যাংকিংয়ে ঈদের সালামি মানিকছড়িতে রসালো ফলের বাম্পার ফলন, বাজারজাত সুবিধা না থাকায় নষ্ট হচ্ছে লিচুর বাহার যেসব অনলাইন বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করে তারা রেজিস্ট্রেশন পাবে: তথ্যমন্ত্রী ভ্যাট রিটার্ন দেওয়া যাবে ৯ জুন পর্যন্ত মানিকছড়িতে ‘করোনা’ উপসর্গ নিয়ে গার্মেন্টস কর্মীর মৃত্যু স্বচ্ছতা আনতে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চালের বস্তায় স্টেনসিল কোলাহল শূন্য চট্টগ্রামের ঈদ বিনোদন কেন্দ্র কাপ্তাইয়ে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা পাচ্ছে ৬২৫০ জন ‘বারবার আমরা বলেছি, ত্রাণ দিতে হবে না ভালো একটা বাঁধ করে দেন’ একদিনে আরও ২১ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ১১৬৩
ঈদের আনন্দের চেয়ে বেঁচে থাকাই বড় চ্যালেঞ্জ

ঈদের আনন্দের চেয়ে বেঁচে থাকাই বড় চ্যালেঞ্জ

করোনা পরিস্থিতিতে ঈদের আনন্দের চেয়ে বেঁচে থাকাটাকে বড় চ্যালেঞ্জ মনে করছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘আমরা দুটো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করছি। করোনা সংক্রমণ রোধ ও চিকিৎসা এবং সুপার সাইক্লোন আম্পনের ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা ও পুনর্বাসন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সাইক্লোন পরবর্তী পুনর্বাসন তৎপরতা ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে। তিনি দুর্যোগের অমানিশার আলো হাতে আঁধারের সাহসী কাণ্ডরী।’

ওবায়দুল কাদের শুক্রবার (২২ মে) তার বাসভবন থেকে মধুর ক্যান্টিনে স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের উদ্যোগে অসহায় গরিব মানুষের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণের সময়ে ভিডিও কনফারেন্সে সংযুক্ত হয়ে একথা বলেন।

করোনা প্রাদুর্ভাবে কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন,  ‘এবার এক ভিন্ন বাস্তবতা ঈদুল ফিতর আসন্ন। ঈদের আনন্দ উদযাপনের চেয়ে বেঁচে থাকার লড়াই আমাদের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। বেঁচে থাকলে আমরা ভবিষ্যতে ঈদ উদযাপনের অনেক সুযোগ পাবো। এখন করোনা বিরোধী লড়াইয়ে আসুন আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা পালন করি, স্থানান্তর না করি, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি।’

কাদের বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ও নিবিড় তত্ত্বাবধানে চলছে ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার পুনর্বাসন। সশস্ত্র বাহিনীর বিশেষ করে সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর প্রশাসনকে উপদ্রুত এলাকায় উদ্ধার তৎপরতা, পুনর্বাসন ও চিকিৎসা সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। বেড়িবাঁধ মেরামতের কাজ করছেন। পাশাপাশি পুলিশ ও অন্যান্য সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলো একযোগে কাজ করে চলছে।’

তিনি বলেন, ‘যে কোনও দুর্যোগে বাংলাদেশ থেমে থাকেনি। প্রতিকূলতা ডিঙিয়ে মর্যাদার সঙ্গে মাথা তুলে দাঁড়ানো একদেশ বাংলাদেশ।  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা করোনা সংকট ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা করবো।’

ঘূর্ণিঝড় উপদ্রুত এলাকাবাসীর উদ্দেশে তিনি বলেন,  ‘আপনারা মনে সাহস রাখুন। মনোবল হারাবেন না। দুর্যোগ-দুর্বিপাকে পরীক্ষিত ও সাহসী নেত্রী শেখ হাসিনা এবং তার সরকার আপনাদের পাশে রয়েছে।’

করোনা সংকটে আওয়ামী লীগের ত্রাণ তৎপরতা কথা তুলে ধরে সাধারণ সম্পাদক বলেন, করোনা সংকটে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের তৎপরতা বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। মাটি ও মানুষের দল অতীতে মানুষের সঙ্গে ছিল, এখনও আছে, ভবিষ্যতেও থাকবে। স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগ ছিন্নমূল শিশু, ভাসমান মানুষের মাঝে ঈদের আগে উপহার সামগ্রী বিতরণ করছে যা প্রশংসনীয় উদ্যোগ।

এসময় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ, সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু এবং  ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য উপস্থিত ছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT