আদালত থেকে পুলিশ হেফাজতে থাকা আসামির পলায়ন আদালত থেকে পুলিশ হেফাজতে থাকা আসামির পলায়ন – CTG Journal

বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ০৫:৫৮ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
মানিকগঞ্জে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ ও হত্যার দায়ে যুবকের যাবজ্জীবন ৪ খুনের রহস্য উন্মোচন: খোটা দেওয়ায় পরিবারসহ ভাইকে খুন প্রধানমন্ত্রী যা আহ্বান করেন জনগণ তাতেই সাড়া দেয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরগুনায় সৌদি প্রবাসীসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহী মামলা: পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ সাংবাদিক নেতা রুহুল আমীন গাজী গ্রেফতার মানিকছড়িতে প্রাথমিক শিক্ষক ও শিক্ষা কর্মকর্তার বিদায় অনষ্ঠান চট্টগ্রাম থেকে রপ্তানি হচ্ছে গরুর নাড়িভুড়ি পরীক্ষা পদ্ধতিতে পরিবর্তন আসছে ধর্মঘটে চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙ্গরে পণ্য খালাসে অচলাবস্থা ফরম পূরণের কিছু টাকা ফেরত পাবে এইচএসসি শিক্ষার্থীরা মহাবিশ্বের নক্ষত্রের চেয়েও বেশি ভাইরাস পৃথিবীতে, কিন্তু সব ভাইরাস দ্বারা মানুষ আক্রান্ত হয় না কেন? কারিগরি শিক্ষার্থীদের পরীক্ষায় বসতেই হবে
আদালত থেকে পুলিশ হেফাজতে থাকা আসামির পলায়ন

আদালত থেকে পুলিশ হেফাজতে থাকা আসামির পলায়ন

সিটিজি জার্নাল নিউজঃ নরসিংদী জেলা জজ আদালতে পুলিশ হেফাজতে থাকাবস্থায় মো. কাউসার ওরফে কাশেম ওরফে কাশু ওরফে ফরিদ (২১) নামে এক ডাকাতি মামলার আসামি পালিয়ে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ রবিবার দুপুরে ওই মামলার ১০ আসামিকে আদালতের হাজতখানা থেকে এজলাসে নিয়ে যাওয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে।

আসামি মো. কাউসার সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার বিনানাই এলাকার আবুল কালাম ওরফে কলিমের ছেলে। তাঁর বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় অস্ত্র ও ডাকাতি মামলায় ৫টি মামলা রয়েছে।

জানা গেছে, মো. কাউসার আন্ত:জেলা ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য ও নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠনের সদস্য।

আদালত পুলিশের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আজ রবিবার সকালে মো. কাউসারসহ ১০ জনকে আদালতের হাজতখানায় আনা হয় হাজিরা শুনানির জন্য। দুপুরে আদালত পুলিশের সদস্য সাইদুল ও আবদুল হামিদ আসামিদেরকে হাতকড়া পরিয়ে হাজতখানা থেকে আদালতের দোতলায় মূখ্য বিচারিক হাকিমের এজলাসে নিয়ে যাওয়ার সময় কৌশলে কাউসার পালিয়ে যায়। আদালতে হাজিরা দেওয়ার জন্য এজলাসে উঠানোর সময় পুলিশ সদস্য বুঝতে পারে এক আসামি নেই। পরে অনেক খোঁজাখুজি করেও তাঁর সন্ধান পাওয়া যায়নি।

এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে আদালত পুলিশের পরিদর্শক (ওসি) মো. রুহুল ইসলাম বলেন, ‘এটা আমাদের ব্যর্থতা। আমরা চেষ্টা করছি তাঁকে গ্রেপ্তার করার। আমরা দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্যদের দায়িত্বে অবহেলা ও সার্বিক বিষয়ে পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দিচ্ছি। তাঁরা তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘আদালতের নিরাপত্তার জন্য আমরা সিসি ক্যামেরা লাগিয়েছিলাম। পরে বিচারকদের আপত্তির কারণে তা খোলে ফেলতে বাধ্য হয়েছি। আজকে যদি সিসি ক্যামেরা থাকত তাহলে সহজেই ঘটনাটি বের করা ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব হত।’

একে/এম

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT