২১-এর খেলায় আমিই গোলরক্ষক: মমতা - CTG Journal ২১-এর খেলায় আমিই গোলরক্ষক: মমতা - CTG Journal

রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ০১:৫৯ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
এক রাতে মিললো ১২ কোটি টাকার ইয়াবা ‘ওয়াজ-মাহফিলের নামে জাতিকে ঈমানহারা করছেন তাহেরী’ মানিকছড়িতে দুগ্ধগাভী পেলেন অভিভাবকহীন শিশু-কিশোর পরিবার নিবন্ধন ৪৯ লাখ, টিকা নিয়েছেন ৩৬ লাখের বেশি মানুষ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে বাংলাদেশের উত্তরণে ভারত ‘খুশি’ এক বা দুই ডোজ যা-ই হোক, সহজলভ্য ভ্যাকসিন গ্রহণের পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের ফেনীতে একটি ভবনে বিস্ফোরণে মা ও দুই মেয়ে দগ্ধ বেরোবি’র বিশেষ উন্নয়ন প্রকল্পে প্রভাবমুক্ত ও নিরপেক্ষ তদন্ত হয়েছে: ইউজিসি রোজার আগেই ‘মাঠে নামবে’ গণফোরাম করোনাভাইরাস: দেশে আরও ১০ মৃত্যু, শনাক্ত ৫৪০ সংশোধন নয়, ২৬ মার্চের আগেই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করুন: জাফরুল্লাহ চৌধুরী চট্টগ্রামে করোনায় আক্রান্ত আরও ৯২ জন
২১-এর খেলায় আমিই গোলরক্ষক: মমতা

২১-এর খেলায় আমিই গোলরক্ষক: মমতা

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে ততই বাড়ছে সেখানকার দুই বড় দল তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপি নেতাদের বাকযুদ্ধ। রবিবার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ সময় তিনি বলেন, ‘২১-এ একটাই খেলা হবে। আম হবো গোলরক্ষক। হারতে আমরা শিখিনি, আমাদের হারানো যাবে না।’

দলের প্রভাবশালী নেতা ও ভাতিজা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রীকে দেওয়া সিবিআই নোটিস নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানান মমতা। প্রসঙ্গ উল্লেখ না করেই তার স্পষ্ট হুঁশিয়ারি, ‘ধমকানি চমকানি জেল দেখিয়ে আমাদের ভয় দেখাবেন না। ওসব আমরা পেরিয়ে এসেছি। ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। আমার দেহে যতক্ষণ প্রাণ থাকবে ততক্ষণ কোনও ধমকানির কাছে আমি নত হবো না।’

দেশপ্রিয় পার্কের অনুষ্ঠানে মমতা বলেন, “যারা বাংলায় এসে সুড়সুড়ি দেয়, ব্যঙ্গ করে তারা ‘বাংলা’র নামকরণটা করলো না। চার বছর ধরে ফেলে রেখেছে। ‌রাজ্যের নাম বাংলা হবে না কেন? বাংলাদেশ আছে বলে? পাকিস্তানে পঞ্জাব আছে। তাহলে এ দেশে পঞ্জাব থাকল কী করে? বাংলাদেশ তো একটা দেশ। আর আমরা বাংলা রাজ্য বা প্রদেশের কথা বলেছি। যেমন অন্ধ্রপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ আছে।’‌ কেন্দ্রের সরকারকে মমতার কটাক্ষ, ‘‌ওদের উচ্চ–মধ্য থাকতে পারে। কিন্তু বাংলার বেলায় সমস্যা।’‌‌

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘চিরকাল দেখছি, বাংলার প্রতি বঞ্চনা করা হচ্ছে। ‌বাংলার কেউ যদি খুব বড় হয়ে যায় তা হলে তাকে টেনে নীচে নামানোর চেষ্টা করা হয়। নেতাজি, রামকৃষ্ণ, রবীন্দ্রনাথকেও রেয়াত করেনি।’

তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘আমি তো শুনছি, দিল্লির অনেক নেতা কখনও কখনও বলছে, বাংলার মেরুদণ্ড কী করে ভেঙে দিতে হয় আমরা জানি। চেষ্টা করে দেখুন, আগেও তো করেছেন। আমরা তো বন্দুকের সঙ্গে লড়াই করে এসছি। ভয় পাবো কেন? আমাদের মেরুদণ্ড ভেঙে দেওয়া অত সহজ নয়। এই মাটিই আমায় শিখিয়েছে, কাউকে দেখে ভয় না পেতে। বাঘের মতো লড়াই করতে।’

বক্তব্যের শেষদিকে নিজের একটি লেখা পাঠ করেন মমতা। সেখান থেকেই ২১ সালের ভোটের প্রসঙ্গে আসেন তিনি। মমতা বলেন, ‘২১-এ চ্যালেঞ্জ হবে। ২১-এই আমরা চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করি এবং ২১-এই চ্যালেঞ্জ হোক। দেখি, কার জোর কতটা। ২১-এ একটা খেলা হবে। কারা হারে, কারা জেতে দেখবো। আর তাতে যদি আমায় জেলেও পাঠিয়ে দেয়, তবে জেল থেকেই ডাক দেবো, জয় বাংলা। আমরা কারও পরোয়া করি না।’

মমতা বলেন, ‘এরপর থেকে হ্যালো বলবেন না, ফোন আসলে ধরে বলবেন, জয় বাংলা।’ সূত্র: ইন্ডিয়া টুডে, হিন্দুস্তান টাইমস।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT