মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ০৭:৩০ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
রোহিঙ্গা ও আটকে পড়া পাকিস্তানিরা বাংলাদেশের বোঝা: প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনিসহ মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষার সূচি প্রকাশ দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন ১ কোটি ৮২ লাখ মানুষ পরমাণু শক্তি আমরা শান্তির জন্য ব্যবহার করবো: প্রধানমন্ত্রী দক্ষিণ এশিয়ায় করোনার ধাক্কা সামলানোর শীর্ষে বাংলাদেশ স্কুল শিক্ষার্থীদের শিগগিরই টিকা দেওয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী শারদীয়া দুর্গাপুজা উপলক্ষে কাপ্তাইয়ে মন্দিরে আর্থিক সহায়তা প্রদান করলেন সেনা জোন রামগড়ে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পথে কামাল ‘করোনা পরবর্তী পরিবেশ ও জলবায়ু সহনশীল পুনরুদ্ধার পরিকল্পনা জরুরি’ ৬ ছাত্রের চুল কেটে দেওয়া শিক্ষক কারাগারে জাতীয় পার্টির নতুন মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচন ১১ নভেম্বর
২০২০ থেকে পূর্বাচলে স্থায়ীভাবে বাণিজ্যমেলা: বাণিজ্যমন্ত্রী

২০২০ থেকে পূর্বাচলে স্থায়ীভাবে বাণিজ্যমেলা: বাণিজ্যমন্ত্রী

সিটিজি জার্নাল নিউজঃ এ বছর মেলায় রফতানি আদেশ বাড়বে। কারণ এবারের মেলায় সুশৃংখল পরিবেশ তৈরির চেষ্টা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

মন্ত্রী বলেন, গতবার মেলায় ২৮০ কোটি টাকার রফতানি আদেশ পাওয়া গিয়েছিল। আশা করা হচ্ছে এ বছর তা আরও বাড়বে। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ২০২০ সালে পূর্বাচলে স্থায়ীভাবে বাণিজ্যমেলা অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে বছরের সব সময় মেলা হবে।

রোববার সকালে ২০ তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা উপলক্ষে শেরেবাংলা নগরের মেলা মাঠে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

মন্ত্রী বলেন, বাণিজ্যমেলায় যেমন ব্যবসা বাণিজ্য বাড়ে তেমনি এটি বিনোদনের অংশও। তাই মেলাকে এবার আরও সুন্দর ও আকর্ষণীয় করে তোলার চেষ্টা করা হয়েছে।

দর্শনার্থীদের চলাচলের যেন সুবিধা হয় তাই মেলার অভ্যন্তরের রাস্তাগুলোতে বেশি জায়গা রাখা হয়েছে। এবারে মেলায় ১০০টি সিসি ক্যামেরা থাকবে, প্রয়োজনে তা আরও বাড়ানো হবে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সার্বক্ষণিক মনিটরিং করবে বলে জানান বাণিজ্যমন্ত্রী।

তিনি আরও বলেন, আমরা প্রতিবারই বছরে শুরুতে পুরো মাস জুড়ে বাণিজ্য মেলার আয়োজন করি। আগামীকাল ১ জানুয়ারি সকাল দশটায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এ মেলার উদ্বোধন করবেন।

মেলায় স্টল বরাদ্দ নিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী জানান, তদবির করে মেলায় স্টল বরাদ্দ পাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। লটারির মাধ্যমে স্টল বরাদ্দ হয়। আর বড় স্টলগুলো টেন্ডারের মাধ্যমে।

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর ভাইস চেয়ারম্যান বিজয় ভট্টাচার্য জানান, এ বছর মেলায় ১৭ টি দেশের ৪৩ টি প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে। দেশি-বিদেশি মিলে ৫৯৮টি স্টল ও প্যাভিলিয়ন তৈরি হচ্ছে মেলা মাঠে। এর মধ্যে বড় প্যাভিলিয়ন ১১২ টি, মিনি প্যাভিলিয়ন ৭৭ টি। এছাড়াও বিভিন্ন ক্যাটাগরির মোট স্টলের সংখ্যা ৪০০ টি।

স্টল ছাড়াও মেলায় থাকবে ফ্লাওয়ার গার্ডেন, ই-শপ, শিশু পার্ক, প্রাইমারী হেলথ সেন্টার, মা ও শিশু কেন্দ্র, রক্ত সংগ্রহ কেন্দ্রসহ ৩২ ধরণের অবকাঠামো। থাকছে বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন, যেখানে এসে বিদেশের মানুষও বাংলাদেশের ইতিহাস জানতে পারবে।

মেলা চলবে প্রতিদিন সকাল ১০ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত।

একে/এম

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT