সৎ বাবার বিরুদ্ধে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ধর্ষণের অভিযোগ - CTG Journal সৎ বাবার বিরুদ্ধে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ধর্ষণের অভিযোগ - CTG Journal

বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ০৮:২০ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
কাদের মির্জার ভাই ও ছেলেসহ ৩৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতের তাণ্ডব: আরও ৭ গ্রেফতার সমঝোতা নয় হেফাজতকে শক্তভাবে দমনের দাবি লকডাউনে ‘বিশেষ বিবেচনায়’ চলবে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট লোহাগাড়ায় একদিনেই ৩৩ জনকে জরিমানা তথ্যপ্রযুক্তি আইনে নুরের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবেদন ৬ জুন সালথা তাণ্ডব: সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান গ্রেফতার বাঁশখালীতে ‘শ্রমিকরাই শ্রমিকদের গুলি করে হত্যা করেছে’! প্রাথমিক শিক্ষকদের আইডি কার্ড দেওয়ার আশ্বাস ‘নারী চিকিৎসকের প্রতি পুলিশ-ম্যাজিস্ট্রেটের অসৌজন্যমূলক আচরণ দেখা যায়নি’ চুয়েটে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ২৪ এপ্রিল মিকনকে ক্রসফায়ারে দেওয়া হবে: কাদের মির্জা
সৎ বাবার বিরুদ্ধে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ধর্ষণের অভিযোগ

সৎ বাবার বিরুদ্ধে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ধর্ষণের অভিযোগ

ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ১১ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে জামাল হোসেন নামের এক ব্যক্তি বিরুদ্ধে। খাগড়াছড়ি সদরের শালবন এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে। সোমবার (৫ এপ্রিল) জামাল ও শিশুটির মা রহিমা বেগমকে আটক করেছে পুলিশ।  

শিশুটির চাচি নুরজাহান বেগম জানান, শিশুটির বাবা মুসা মিয়া বিদেশে থাকার সুবাদে তার মা রহিমা বেগমের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলে জামাল। এক পর্যায়ে তারা বিয়ে করে। বিয়ের পরে শিশুটি তার মায়ের সঙ্গে সৎ বাবার বাড়িতে ছিল।

ধারণা করা হচ্ছে, ৩ এপ্রিল রাতে কোনও কিছুর সঙ্গে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে খাওয়ানো হয়। পরে ধর্ষণ করে শিশুটিকে। শিশুটি অসুস্থ বলে রবিবার সকালে তার বাবার মানিকছড়ি বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় জামাল। বিষয়টি বুঝতে পেরে শিশুটিকে মানিকছড়ি থানায় নিয়ে আসে স্বজনরা। পুলিশ শিশুটিকে প্রথমে মানিকছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায় এবং অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় পরে খাগড়াছড়ি আধুনিক সদর হাসপাতালে রেফার্ড করে।

বিষয়টি খাগড়াছড়ি সদর থানাকে জানালে তারা জামাল ও রহিমাকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে গ্রেফতার করে। তাদের ঘরে তল্লাশি চালিয়ে ঘুমের ওষুধ উদ্ধার করে।

আটক হওয়া জামাল হোসেন খাগড়াছড়ি পৌর যুবলীগের সদস্য বলে জানা গেছে। তবে এ বিষয়ে মন্তব্য করতে চাননি কোনও যুবলীগ নেতা।

খাগড়াছড়ি সদর থানায় অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আবদুর রশিদ বলেন, দুজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।  টেস্ট রিপোর্ট পাওয়ার পর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT