সোনিয়ার ভয়ঙ্কর প্রেমের ফাঁদ - CTG Journal সোনিয়ার ভয়ঙ্কর প্রেমের ফাঁদ - CTG Journal

মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ১০:৪৯ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
দিনে সাইকেল চুরি, রাতে ইয়াবা বিক্রি সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে তিন পরামর্শ ১৯ দিনে জামিনে মুক্ত ৩৩ হাজার কারাবন্দি ফেসবুক কি শুনতে পায়, কীভাবে নজরদারি করে? পানছড়িতে ভেস্তে যাচ্ছে এলজিইডি’র ১ কোটি ৬২ লাখ টাকার তীর রক্ষা প্রকল্প: মরে যাচ্ছে ঘাস, তীরে ধরেছে ফাটল খালেদা জিয়ার বিদেশযাত্রা নিয়ে নতুন হিসাব-নিকাশ চীনা রাষ্ট্রদূতের মন্তব্যে বিস্মিত কূটনীতিকরা বেগম খালেদা জিয়ার রোগ মুক্তি কামনায় কাপ্তাইয়ে বিএনপির দোয়া ও ইফতার মাহফিল চৈতন্য গলির জুয়ার আস্তানায় পুলিশের হানা, আটক ১৪ সীমান্ত এলাকায় ব্যাপকহারে করোনা টেস্টের নির্দেশ রাউজানে প্রতারণা ও চাঁদাবাজির অভিযোগে যুবলীগ নেতা গ্রেপ্তার বাংলাদেশ থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাত ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা
সোনিয়ার ভয়ঙ্কর প্রেমের ফাঁদ

সোনিয়ার ভয়ঙ্কর প্রেমের ফাঁদ

প্রথমে প্রেমের অভিনয়, তারপর ফাঁদ পেতে নিয়ে আসেন নিজের ঘরে। এরপর ঘরের মধ্যেই অশ্লীল ছবি তুলে আদায় করে নেন টাকা। বৃহস্পতিবার রাতে এক আইনজীবীকে উদ্ধার করতে গিয়ে ওই চক্রের দুই সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তার দুই প্রতারক হলেন— জোবাইদা সুলতানা হীরা ওরফে সোনিয়া (২৫) ও তার সহযোগী ইমরান (২৭)। এদের মধ্যে সোনিয়ার বিরুদ্ধে একটি হত্যাসহ তিনটি মামলা এবং সহযোগী ইমরানেরও তিন মামলা রয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, হাবিব নামে এক আইনজীবীকে মামলার বিষয়ে কথা আছে জানিয়ে নগরের আগ্রাবাদ চৌমুহনী দেখা করে সোনিয়া। একপর্যায়ে সেখান থেকে মৌলভীপাড়ায় সোনিয়ার বাসায় যেতে বলেন। অ্যাডভোকেট হাবিবও তার কথায় বাসায় যান। বাসায় যেতেই আরও তিন যুবক তাকে আটক করে ফেলে। তারা প্রাণ নাশের হুমকি দিয়ে দাবি করেন ২০ হাজার টাকা। তবে আইনজীবী কৌশলে থানায় ফোন করেন। পরে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে এক সহযোগীসহ সোনিয়াকে গ্রেপ্তার করা গেলেও বাকি দুইজন পালিয়ে যায়। 

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সোনিয়া গত ১০ বছরে কমপক্ষে ৫০টি জিম্মির ঘটনা ঘটিয়েছে জানায়।

ডবলমুরিং থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন, ‘গ্রেপ্তার সোনিয়া সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের প্রধান। তার গ্রুপে আরও চারজন ছেলে আছে। সোনিয়া প্রেমের অভিনয় করে ছেলেদের নিজ ঘরে নিয়ে আসে। এরপর চক্রের বাকি সদস্যরা অশ্লীল ছবি তুলে জিম্মি করে টাকা আদায় করে। যারা ছবি দেখেও টাকা দেয়না তাদের মারধর করে, এমনকি প্রাণনাশেরও হুমকি দেয়। তাদের হাতে এভাবে জিম্মি অবস্থায় ২০১৩ সালে একজন মারা যায়। গতকাল এক আইনজীবীর কৌশলী ফোনে তাদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ।’

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT