সিএনজিতে নগর ঘুরে ছিনতাই করে তারা - CTG Journal সিএনজিতে নগর ঘুরে ছিনতাই করে তারা - CTG Journal

শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১, ০৮:২৬ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
ভেঙে পড়েছে হেফাজতের শীর্ষ কমান্ড লকডাউনে গৃহবন্ধী পরিবারে ‘স্মার্ট মানিকছড়ি’র উদ্যোগে খাদ্যসহায়তা বিতরণ রাজউকের চেয়ারম্যান হলেন এবিএম আমিন উল্লাহ নুরী বিদেশফেরতদের কোয়ারেন্টিন ৫ দিন মানুষের মাঝে চাপা হাহাকার উঠেছে: জি এম কাদের রামগড়ে আমের ভালো ফলনের সম্ভাবনা, করোনা সংকট হতেপারে চাষীদের দুশ্চিন্তার কারন পানছড়িতে ৫ কিশোরের উদ্যোগে করোনায় গৃহ বন্দী অসহায় পরিবারের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরন আরও ৮৮ জনের মৃত্যু ওবায়দুল কাদেরের গ্রামের বাড়িতে গুলি বর্ষণের অভিযোগ রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ডাকাতের গুলিতে নিহত ১, আহত ২ হেফাজত নেতা খালেদ সাইফুল্লাহ আইয়ুবী রিমান্ডে রাজনৈতিক প্রতিশ্রুতি থাকলে অর্থের অভাব হবে না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
সিএনজিতে নগর ঘুরে ছিনতাই করে তারা

সিএনজিতে নগর ঘুরে ছিনতাই করে তারা

তাদের একমাত্র পেশা চুরি-ছিনতাই। চট্টগ্রাম নগরীর নির্জন এলাকা বেছে নিয়ে পাতেন ফাঁদ। তারপর সুবিধামতো পথচারী কিংবা রিকশার যাত্রী দেখলেই অস্ত্র ঠেকিয়ে লুটে নেন টাকা-পয়সা, মোবাইল সেট ও দামি জিনিসপত্র। পরে সিএনজিতে চড়ে চম্পট। ছিনতাই শেষে নিরাপদে পালাতে দলে জুটিয়েছেন একজন চালকও। তবুও শেষ রক্ষা হয়নি। ‘হাতে নাতে’ ধরা পড়েছেন পুলিশের হাতে। 

বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে নগরীর আইসফ্যাক্টরি রোড থেকে  ৪ জনকে গ্রেপ্তারের পর এমনটাই দাবি করেছে পুলিশ। পুলিশ বলছে, এসময় তাদের কাছ থেকে মিলেছে বিভিন্ন ডিজাইনের ৩টি ছোরা। উদ্ধার করা হয়েছে ছিনতাই কাজে ব্যবহৃত সিএনজি অটোরিক্সাটি। ‘পেশাদার ছিনতাই চক্রের’ সদস্যদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে বলেও ভাষ্য পুলিশের। 

গ্রেপ্তারকৃত চারজন হলেন- বাকলিয়া থানা এলাকার মো. জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে মো. মাইনউদ্দিন (২৬), কোতোয়ালী থানা এলাকায় মৃত মোহাম্মদ সেলিমের ছেলে মোহাম্মদ আবু তাহের (৫৫), বাকলিয়া থানা এলাকার মোহাম্মদ রফিকের ছেলে আবুল কাশেম (৩২), বায়েজীদ বোস্তামী থানা এলাকার আব্দুর রশিদের ছেলে মো. হানিফ (৩৫)। এদের মধ্যে হানিফ সিএনজি চালক বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, আজ (বৃহস্পতিবার) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে আইস ফ্যাক্টরী রোডে ‘রুটিন মাফিক’ ফাঁদ পাতেন ছিনতাই চক্রের সদস্যরা। তাদের আজকের ‘টার্গেটে’ ছিলেন একজন  নারী চিকিৎসক। তবে ওই নারী চিকিৎসকের কাছ থেকে ছিনতাই করতে গিয়ে বেকায়দায় পড়ে যান নিজেরাই। কারণ কাছাকাছি ছিলো পুলিশের পেট্রোল টিম। ওই চিকিৎসকের চিৎকারে সেই টিম ঘটনাস্থল থেকেই ‘হাতে নাতে’ গ্রেফতার করে এ ৪ ছিনতাইকারীকে। 

এসময় তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় স্টিল ও কাঠের পৃথক ৩টি টিপ ছোড়া। বাট সহ যার প্রতিটির উচ্চতা ৫.৫ থেকে ১০ ইঞ্চি। উদ্ধার করা হয় ছিনতাই কাজে ব্যবহৃত সিএনজি অটোরিক্সাটিও; যার নম্বর ‘থ-১১-৯৭২৮’।

সদরঘাট থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আহমদ উল্যাহ ভূঁইয়া বলেন, ‘আইস ফ্যাক্টরী রোড থেকে এ চার ছিনতাইকারীকে হাতেনাতে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা সকালে ছিনতাই করতে সেখানে উৎপেতে ছিলো।’

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT