সালমান শাহ’র মৃত্যু: পিছিয়েছে চূড়ান্ত প্রতিবেদনের ওপর শুনানি - CTG Journal সালমান শাহ’র মৃত্যু: পিছিয়েছে চূড়ান্ত প্রতিবেদনের ওপর শুনানি - CTG Journal

রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ১২:৩৭ অপরাহ্ন

        English
সালমান শাহ’র মৃত্যু: পিছিয়েছে চূড়ান্ত প্রতিবেদনের ওপর শুনানি

সালমান শাহ’র মৃত্যু: পিছিয়েছে চূড়ান্ত প্রতিবেদনের ওপর শুনানি

নায়ক সালমান শাহ’র অপমৃত্যুর মামলায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) চূড়ান্ত প্রতিবেদনের ওপর নারাজি দাখিলের জন্য সময় পেয়েছেন বাদী নীলা চৌধুরী। চূড়ান্ত প্রতিবেদনের ওপর শুনানি ২০ এপ্রিল ধার্য করেছেন আদালত। মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সাইদুজ্জামান শরীফের আদালত সময়ের আবেদন মঞ্জুর করে নতুন এ তারিখ ধার্য করেন।

মঙ্গলবার মামলাটির পিবিআইর প্রতিবেদনের গ্রহণযোগ্যতার বিষয়ে শুনানি ছিল। তবে এদিন মামলার বাদী সালমান শাহ’র মা নীলা চৌধুরী নারাজি দাখিল করবেন জানিয়ে তার আইনজীবী ফারুক আহমেদ আবেদন করেন। আবেদনে তিনি বলেন, সালমান শাহ মৃত্যুর ঘটনা আমাদের কাছে যেসব সাক্ষ্য-প্রমাণ ছিল আমরা সেটা পিবিআইকে সরবরাহ করেছি। তারপরও তদন্তে সেসব সাক্ষ্য-প্রমাণের প্রতিফলন ঘটেনি। সালমান শাহ’র মায়ের সঙ্গে কথা হয়েছে, আমরা প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে আদালতে নারাজি আবেদন করবো।

তিনি আরও বলেন, মামলার বাদী নীলা চৌধুরীর মা লন্ডনে অবস্থান করছেন। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে তিনি দেশে আসতে পারছেন না। তাই নারাজি দেওয়ার জন্য আপনার কাছে সময়ের প্রার্থনা আবেদন করছি। পরে সময় আবেদন মঞ্জুর করে প্রতিবেদনের ওপর শুনানির জন্য আদালত নতুন তারিখ ঠিক করেন।

প্রসঙ্গত, ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর মারা যান চিত্রনায়ক চৌধুরী মোহাম্মদ শাহরিয়ার (ইমন) ওরফে সালমান শাহ। সে সময় এ বিষয়ে অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেছিলেন তার বাবা প্রয়াত কমরউদ্দিন আহমদ চৌধুরী। পরে ১৯৯৭ সালের ২৪ জুলাই ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে অভিযোগ করে মামলাটিকে হত্যা মামলায় রূপান্তরিত করার আবেদন জানান তিনি। অপমৃত্যু মামলার সঙ্গে হত্যাকাণ্ডের অভিযোগের বিষয়টি একসঙ্গে তদন্ত করতে সিআইডিকে নির্দেশ দেন আদালত। গত ৩ নভেম্বর ১৯৯৭ সালে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয় সিআইডি। চূড়ান্ত প্রতিবেদনে সালমান শাহর মৃত্যুকে আত্মহত্যা বলে উল্লেখ করা হয়। ২৫ নভেম্বর ঢাকার সিএমএম আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন গৃহীত হয়। সিআইডির প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে তার বাবা কমরউদ্দিন আহমদ চৌধুরী রিভিশন মামলা দায়ের করেন।

২০০৩ সালের ১৯ মে মামলাটি বিচার বিভাগীয় তদন্তে পাঠান আদালত। এরপর প্রায় ১৫ বছর মামলাটি বিচার বিভাগীয় তদন্তে ছিল। ২০১৪ সালের ৩ আগস্ট ঢাকার সিএমএম আদালতের বিচারক বিকাশ কুমার সাহার কাছে বিচার বিভাগীয় তদন্তের প্রতিবেদন দাখিল করেন মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ইমদাদুল হক। এ প্রতিবেদনে সালমান শাহর মৃত্যুকে অপমৃত্যু হিসেবে উল্লেখ করা হয়। ২০১৪ সালের ২১ ডিসেম্বর সালমানের মা নীলা চৌধুরী ছেলের মৃত্যুতে বিচার বিভাগীয় তদন্ত প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান এবং ওই প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে নারাজি দেবেন বলে আবেদন করেন।

২০১৫ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি নীলা চৌধুরী ঢাকা মহানগর হাকিম জাহাঙ্গীর হোসেনের আদালতে বিচার বিভাগীয় তদন্ত প্রতিবেদনের বিষয়ে নারাজির আবেদন দাখিল করেন। নারাজি আবেদনে উল্লেখ করা হয়, আজিজ মোহাম্মদ ভাইসহ ১১ জন তার ছেলে সালমান হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকতে পারেন।

মামলাটি এরপর র‍্যাব তদন্ত করে। তবে র‍্যাবের তদন্তের আদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ গত বছরের ১৯ এপ্রিল মহানগর দায়রা জজ আদালতে একটি রিভিশন মামলা করে। ২০১৬ সালের ২১ আগস্ট ঢাকার বিশেষ জজ ৬-এর বিচারক ইমরুল কায়েস রাষ্ট্রপক্ষের রিভিশনটি মঞ্জুর করেন এবং র‍্যাবকে মামলাটি তদন্ত না করার আদেশ দেন। তখন থেকে মামলাটি তদন্তের দায়িত্বে আছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT