যুক্তরাষ্ট্র-চীন বাগযুদ্ধ চরমে - CTG Journal যুক্তরাষ্ট্র-চীন বাগযুদ্ধ চরমে - CTG Journal

সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ১০:৪৯ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
প্রকৃতি ও জীববৈচিত্র্য হুমকির মুখে, থানচিতে অবৈধভাবে ঝিরি-ঝর্ণা থেকে অবাধে পাথর উত্তোলন নতুন বছরে নতুন তরকারী হিসাবে পাহাড়ে কাঠাল খুবই প্রিয় সব্জি লিখিত পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে যা জানালো বার কাউন্সিল ঈদের আগে লকডাউন শিথিল হবে মানিকছড়ি ভিজিডি’র খাদ্যশস্য সরবরাহে বিধিভঙ্গ করায় খাদ্য নিয়ন্ত্রক ও ওসিএলএসডি’কে শোকজ লকডাউনে মানিকছড়িতে কঠোর অবস্থানে প্রশাসন, জরিমানা অব্যাহত চট্টগ্রামে দোকানপাট-শপিংমল খুলে দেওয়ার দাবি ব্যবসায়ীদের না.গঞ্জ মহানগর জামায়াতের আমিরসহ গ্রেফতার ৩ লকডাউন বাড়ানো হলো যে কারণে একদিনে প্রাণ গেল ১১২ জনের আগ্রাবাদ বিদ্যুৎ ভবনে ৬ চাঁদাবাজ আটক নাইক্ষ্যংছড়িতে রাষ্ট্রবিরোধী প্রচারনার অভিযোগে দুই যুবক আটক
যুক্তরাষ্ট্র-চীন বাগযুদ্ধ চরমে

যুক্তরাষ্ট্র-চীন বাগযুদ্ধ চরমে

মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে জো বাইডেন দায়িত্ব নেওয়ার পর চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার প্রথম উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে দুই দেশের প্রতিনিধিরা তুমুল বাগযুদ্ধে জড়িয়েছেন। বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) আলাস্কায় অনুষ্ঠিত বৈঠকে একে অপরকে আক্রমণ করে কথা বলতে দেখা গেছে তাদের। চীনা কর্মকর্তাদের অভিযোগ, বেইজিং-এর ওপর আক্রমণ চালাতে অন্য দেশগুলোকে উস্কে দিচ্ছে ওয়াশিংটন। আর মার্কিন কর্মকর্তারা বলেছেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মনযোগ আকর্ষণের উদ্দেশ্য নিয়েই আলোচনায় এসেছে চীন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

বেশ কয়েক বছর ধরেই চরম টানাপড়েনের মধ্যে রয়েছে চীন-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক। এর মধ্যেই বৃহস্পতিবার আলাস্কার অ্যাংকরেজে আলোচনায় বসেন দুই দেশের প্রতিনিধিরা। এদিন যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষে বৈঠকে যোগ দেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জেইক সুলিভান। আর চীনের পক্ষে ছিলেন দেশটির পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ইয়াং জিয়েচি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই। শুরু থেকেই বৈঠকটি উত্তেজনাপূর্ণ হয়ে ওঠে।

সূচনা বক্তব্যে ব্লিনকেন বলেন, ‘জিনজিয়াং, হংকং, তাইওয়ান ইস্যুতে গভীর উদ্বেগ জানানোর পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রে সাইবার হামলা, আমাদের মিত্রদের সঙ্গে অর্থনৈতিক নিগ্রহসহ চীনের বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনা করবে। তাদের এসব পদক্ষেপের প্রত্যেকটিই বিশ্বের স্থিতিশীলতার জন্য হুমকিস্বরূপ।’

জবাবে চীনা কমিউনিস্ট পার্টির পলিটব্যুরো সদস্য ইয়াং পাল্টা অভিযোগ করেন, অন্য দেশগুলোকে দমনের জন্য নিজেদের সামরিক শক্তি ও অর্থনৈতিক আধিপত্যকে ব্যবহার করছে ওয়াশিংটন। তিনি বলেন, ‘তথাকথিত জাতীয় নিরাপত্তা ধারণার অপব্যবহারের মাধ্যমে তারা স্বাভাবিক বাণিজ্য বিনিময়ে বাধা সৃষ্টি করছে এবং কিছু কিছু দেশকে চীনের ওপর আক্রমণে উস্কে দিচ্ছে।’ যুক্তরাষ্ট্রের মানবাধিকার পরিস্থিতি বাজে অবস্থায় আছে উল্লেখ করে ইয়াং বলেন, সেখানে কৃষ্ণাঙ্গ আমেরিকানদের হত্যা করা হচ্ছে।

মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা সুলিভান তখন দাবি করেন, তারা চীনের সঙ্গে সংঘাত চান না। তবে সবসময় জনগণ, মিত্র ও নীতির পক্ষে অবস্থান থাকবে তাদের। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের সামনে দুই পক্ষের বাগযুদ্ধ এক ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে চলেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি দল চীনের বিরুদ্ধে দুই পক্ষের জন্য সূচনা বক্তব্যে দুই মিনিটের বেশি কথা না বলার যে নিয়ম ঠিক হয়েছিল, তা লঙ্ঘনের অভিযোগ আনে। বাইডেন প্রশাসনের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা অভিযোগ করে বলেন, ‘চীনা প্রতিনিধি দলকে দেখে মনে হয়েছে তারা নাটক করার মাধ্যমে স্বার্থ হাসিল ও মনযোগ আকর্ষণের জন্য এখানে এসেছে।’ এরপরও যুক্তরাষ্ট্র পরিকল্পনা অনুযায়ী আলোচনা অব্যাহত রাখবে বলে জানান এ কর্মকর্তা। পরে চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমে দেশটির প্রতিনিধি দলের সদস্যরা পাল্টা দাবি করেন, তারা নন, বরং যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারাই সূচনা বক্তব্যে দুই মিনিটের বেশি কথা বলে নিয়ম লঙ্ঘন করেছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT