বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনার চিকিৎসা দেবে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র - CTG Journal বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনার চিকিৎসা দেবে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র - CTG Journal

মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ১০:০৯ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
দিনে সাইকেল চুরি, রাতে ইয়াবা বিক্রি সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে তিন পরামর্শ ১৯ দিনে জামিনে মুক্ত ৩৩ হাজার কারাবন্দি ফেসবুক কি শুনতে পায়, কীভাবে নজরদারি করে? পানছড়িতে ভেস্তে যাচ্ছে এলজিইডি’র ১ কোটি ৬২ লাখ টাকার তীর রক্ষা প্রকল্প: মরে যাচ্ছে ঘাস, তীরে ধরেছে ফাটল খালেদা জিয়ার বিদেশযাত্রা নিয়ে নতুন হিসাব-নিকাশ চীনা রাষ্ট্রদূতের মন্তব্যে বিস্মিত কূটনীতিকরা বেগম খালেদা জিয়ার রোগ মুক্তি কামনায় কাপ্তাইয়ে বিএনপির দোয়া ও ইফতার মাহফিল চৈতন্য গলির জুয়ার আস্তানায় পুলিশের হানা, আটক ১৪ সীমান্ত এলাকায় ব্যাপকহারে করোনা টেস্টের নির্দেশ রাউজানে প্রতারণা ও চাঁদাবাজির অভিযোগে যুবলীগ নেতা গ্রেপ্তার বাংলাদেশ থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাত ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা
বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনার চিকিৎসা দেবে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র

বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনার চিকিৎসা দেবে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র

বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনার চিকিৎসা দেবে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ভ্রাম্যমাণ মেডিক্যাল টিম। বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) এই সেবার উদ্বোধন করা হয়েছে। হাসপাতালে না গিয়ে বাড়িতে থেকেই করোনার চিকিৎসা নিতে এ সেবা চালু করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে ‘গণস্বাস্থ্য ভ্রাম্যমাণ করোনা চিকিৎসা সেবা’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘বাড়িতে বসে করোনার প্রাথমিক চিকিৎসা দিতে হলে একটি থার্মোমিটার, একটি পালস অক্সিমিটার ও ব্লাড প্রেশার পরিমাপের মেশিন থাকলেই যথেষ্ট। ব্লাড প্রেসার মাপতে হলে শুধু তিনটি যোগ্যতা থাকতে হবে— দৃষ্টি শক্তি, শ্রবণ ক্ষমতা ও ইংরেজি সংখ্যা পড়ার সক্ষমতা। এটা কঠিন কিছু নয়। মূল কাজটা হলো একটা লোককে ট্রেনিং দেওয়া।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রয়োজনীয় ওষুধগুলো আমরা বিনা পয়সায় সরবরাহ করবো। কেবল পরীক্ষার খরচটা রোগীকে দিতে হবে। করোনার ভ্রাম্যমাণ চিকিৎসা সেবার উদ্যোগটি সকলকে দেখানোর জন্য যে, কত সহজে অল্প খরচে বাসায় বসেই করোনার প্রাথমিক চিকিৎসা নেওয়া যায়। সম্মিলিতভাবে এই উদ্যোগ না নিলে এটি সফল করা সম্ভব নয়। সরকারকেও সহযোগিতা করতে হবে। শুনেছি, দিল্লিতেও করোনা রোগীদের জরুরি সেবা দিতে একই ধরনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’

ডা. চৌধুরী বলেন, ‘গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে দরিদ্র, মধ্যবিত্ত ও ধনীদের জন্য ভিন্ন ভিন্ন খরচে আইসিইউ’র ব্যবস্থা আছে। আইসিইউতে দৈনিক লাখ টাকা খরচ হওয়ার কোনও কারণ নেই, সর্বোচ্চ ৫০/৬০ হাজার টাকা হতে পারে।’ এছাড়াও গণস্বাস্থ্যে আইসিইউ’র  সুবিধা সম্পন্ন ৫০ শয্যার একটি করোনা ইউনিট আছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। এছাড়া ৮২ সালের ওষুধ নীতি বাস্তবায়ন করলে ১৩০০ টাকার ইনজেকশন ২৫০ টাকায় দেওয়া সম্ভব বলে তিনি অভিমত দেন।

অনলাইনে যোগ দিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডা. নজরুল ইসলাম বলেন, ‘আমাদের করোনা রোগীরা সঠিক চিকিৎসা পাচ্ছেন না। আমরা সুশিক্ষিত একটি দল নিয়ে যদি মানুষের দরজায় যেতে পারি, সেটা অনেক সুফল বয়ে আনবে। ঠিক মতো পরিচলনা করতে পারলে এই সেবার মাধ্যমে মানুষ অনেক উপকৃত হবে। এটি গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের সময়োপযোগী একটি পদক্ষেপ।’

গণস্বাস্থ্যের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টুর সঞ্চলনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন— নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ভ্রাম্যমাণ করোনা চিকিৎসা সেবার টিম লিডার অধ্যাপক ডা. শওকত আরমান, সোশ্যাল সেক্টর ম্যানেজমেন্ট ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী পরিচালক ডা. এএম জাকির হোসাইন, গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক নাসিমা ইয়াসমিন প্রমুখ।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT