ফটিকছড়িতে ৫ ইটভাটা উচ্ছেদ, দুটিকে জরিমানা - CTG Journal ফটিকছড়িতে ৫ ইটভাটা উচ্ছেদ, দুটিকে জরিমানা - CTG Journal

শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১২:৪৬ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়োগে নতুন সুপারিশ বিশ্বজুড়ে প্রতিদিন ৫ লাখ মানুষ ভুগছেন কোভিড সৃষ্ট অক্সিজেন সঙ্কটে গাঁজাক্ষেত ধ্বংস, আটক ৩ হোটেল থেকে সুবর্ণজয়ন্তীর উদ্বোধন করবে বিএনপি করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রশংসা করলেন গুতেরেজ ভাল্লুকের কামড়ে আহত দুইজন মুরং উপজাতিকে হেলিকপ্টারে নিয়ে এলো সেনাবাহিনী ৪৮ ঘণ্টা পর মুক্ত বাতাসে বাংলাদেশ দল ভ্যাকসিন গ্রহণের পরও সংক্রমিত হতে পারেন যে কারণে করোনাভাইরাস: দেশে ১১ মৃত্যুর দিনে শনাক্ত ৪৭০ মুশতাক আহমেদের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন, অপমৃত্যুর মামলা কওমি শিক্ষার্থীদের কর্মমুখী ও সাধারণ শিক্ষার সুযোগ দেবে সরকার করোনার প্রভাব সুদূরপ্রসারী, পুরোপুরি সারে না ক্ষতিগ্রস্ত অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ
ফটিকছড়িতে ৫ ইটভাটা উচ্ছেদ, দুটিকে জরিমানা

ফটিকছড়িতে ৫ ইটভাটা উচ্ছেদ, দুটিকে জরিমানা

সরকারি নির্দেশনা না মেনে চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলায় গড়ে ওঠা ৫টি অবৈধ ইটভাটা উচ্ছেদ করেছে জেলা প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তর। এরমধ্যে ২টি ইটভাটাকে ৬ লাখ ৯৯ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত উপজেলার নানুপুর ও খিরাম এলাকায় এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আলী হাসান। 

উচ্ছেদকৃত ইটভাটাগুলো হলো- উপজেলার খিরাম এলাকার মের্সাস খাজা মঈনুদ্দিন চিশতী ব্রিকস ম্যানুফ্যাকচারিং, মেহেরুজ্জাহা রহঃ ব্রিকস, মেসার্স এবি ব্রিকস ম্যানুফ্যাকচারিং, শাহ আমানত ব্রিকস, নেক্সাস ব্রিকস। অভিযানেইটভাটা গুলোর কাঁচা ইট, চুলা ও চিমনি ধ্বংস করা হয়। 

এদিকে ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন ২০১৩ অনুযায়ী মেসার্স এ বি ব্রিকস ম্যানুফ্যাকচারিং ৪ লাখ ৯৯ হাজার এবং মেসার্স শাহ আমানত ব্রিকস ফিল্ডকে ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। 

এসময় অভিযানে আরও উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রামের সহকারী পরিচালক মো. আফজালুর ইসলাম, চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ, ফটিকছড়ি থানা পুলিশ, র‌্যাব-৭ এর একটি দল, ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম। 

জানা যায়, ইটভাটাগুলোর জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে প্রদত্ত লাইসেন্স নেই, নেই পরিবেশগত ছাড়পত্র বা অবস্থান নির্ধারণের ছাড়পত্র, বন বিভাগের ছাড়পত্র ও বিএসটিআইয়ের মানপত্র। কৃষি জমি ও পাহাড় থেকে মাটি নিয়ে ইট উৎপাদিত হয়ে আসছিল। কোন কোন ইটভাটার পঞ্চাশ থেকে একশ মিটারের মাঝেই রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। 

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আলী হাসান বলেন, ফটিকছড়ি উপজেলার নানুপুর ও খিরাম এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। এসময় ৫টি ইটভাটা উচ্ছেদ করা হয়। এরমধ্যে ২টি ইটভাটাকে ৬ লাখ ৯৯ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
 
তিনি আরও বলেন, পরিবেশ অধিদপ্তরের তথ্যানুযায়ী ফটিকছড়ি উপজেলায় ৪১টি ইটভাটা অবৈধ। ফলে পর্যায়ক্রমে সবগুলো ইটভাটা উচ্ছেদ করা হবে। হাইকোর্টের নির্দেশনা মোতাবেক অবৈধ ইটভাটা উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে বলে তিনি জানান। 

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT