মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ০৭:৩২ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
রোহিঙ্গা ও আটকে পড়া পাকিস্তানিরা বাংলাদেশের বোঝা: প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনিসহ মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষার সূচি প্রকাশ দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন ১ কোটি ৮২ লাখ মানুষ পরমাণু শক্তি আমরা শান্তির জন্য ব্যবহার করবো: প্রধানমন্ত্রী দক্ষিণ এশিয়ায় করোনার ধাক্কা সামলানোর শীর্ষে বাংলাদেশ স্কুল শিক্ষার্থীদের শিগগিরই টিকা দেওয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী শারদীয়া দুর্গাপুজা উপলক্ষে কাপ্তাইয়ে মন্দিরে আর্থিক সহায়তা প্রদান করলেন সেনা জোন রামগড়ে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পথে কামাল ‘করোনা পরবর্তী পরিবেশ ও জলবায়ু সহনশীল পুনরুদ্ধার পরিকল্পনা জরুরি’ ৬ ছাত্রের চুল কেটে দেওয়া শিক্ষক কারাগারে জাতীয় পার্টির নতুন মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচন ১১ নভেম্বর
প্রধানমন্ত্রী শিখিয়েছেন, কথা কম কাজ বেশি: তারানা

প্রধানমন্ত্রী শিখিয়েছেন, কথা কম কাজ বেশি: তারানা

সিটিজি জার্নাল নিউজঃ তথ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিতে গিয়ে তারানা হালিম বলেছেন, ‘নতুন মন্ত্রণালয়ে যোগ দেওয়ার পর তথ্যমন্ত্রী আমার যে প্রশংসা করেছেন আমি তার উপযুক্ত কিনা সেটা জানি না। তবে নতুন জায়গায় আমার কাজে ধারাবাহিকতা থাকবে। আমাদের সময় কম, চ্যালেঞ্জ বেশি। ভালো কাজ করার জন্য যেখানে প্রধানমন্ত্রী দায়িত্ব দেবেন সেখানেই সততা ও দক্ষতার সঙ্গে কাজ করবো। কথা কম বলে কাজ বেশি করবো। দ্রুততার সঙ্গে কাজ করবো। দুর্নীতির সঙ্গে আপস ও সমঝোতা করতে পারবো না। এটা প্রধানমন্ত্রী আমাদের শিখিয়েছেন।’

রবিবার সচিবালয়ে পিআইডির সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে বেলা পৌনে ১১টার দিকে তিনি তথ্য মন্ত্রণালয়ে আসেন। সেখানে প্রথমেই তিনি তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। পরে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনকালে যেসব কাজ করেছেন তার ফসল আগামী এপ্রিলে মাসে পাওয়া যাবে বলে মন্তব্য করেছেন তারানা হালিম। তিনি বলেছেন, ‘ওই (ডাক ও টেলিযোগাযোগ) মন্ত্রণালয়ে যেসব কাজ করেছি তার ফসল তোলার মাস আগামী এপ্রিল। তখন বুঝবেন আমি সেখানে কী কী কাজ করেছি। তবে আমি মনে করি, সৎ থেকে এবং দক্ষতা ও যোগ্যতার সঙ্গে কাজ করাটাই স্বাভাবিক।’

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, ভারপ্রাপ্ত সচিব নাসির উদ্দিন আহমেদ, প্রধান তথ্য কর্মকর্তা কামরুন্নাহার।

তারানা হালিম এসময় আরও বলেন, ‘আগের মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালনকালে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের তারিখ সারপ্রাইজ হিসেবে নিজের কাছেই রেখেছিলাম। সম্ভবত আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি স্যাটালাইটটি উৎক্ষেপণ করা হবে। বাকিটা নির্ভর করবে প্রধানমন্ত্রীর সময়ের ওপর।’

তিনি আরও বলেন, ‘টেলিটকের নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণের জন্য ৬০০ কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণ করেছিলাম, যা একনেকে অনুমোদনও হয়েছিল। কিন্তু নানা কারণে অর্থমন্ত্রী বরাদ্দ দিচ্ছিলেন না। এটা নিয়ে অনেকদিন দেনদরবারও করেছি। আমি একাধিকবার মন্ত্রীর সঙ্গেও কথা বলেছি। সব শেষে এই রদবদলের সাত-আটদিন আগে অর্থ মন্ত্রণালয় এ টাকা বরাদ্দ করেছে। এখন টাকা ছাড় হলে মেশিন কিনে ইন্সটল করলেই নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ সম্পন্ন হবে।’

নতুন এই তথ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘টেলিফোন শিল্প সংস্থা (টেসিস) গত ২৭ বছর ধরে লোকসানে ছিল। সেটাকে আমি দায়িত্ব নেওয়ার পর লাভজনক করেছি। তবে ওই মন্ত্রণালয়ের সব সাফল্য আমার নয়। আমি প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ মতো একজন কর্মী হিসেবে কাজ করেছি। তাই এই সাফল্য সবার। এটি আওয়ামী লীগের ও সরকারের সাফল্য।’

তারানা হালিম বলেন, ‘আমাদের মূল লক্ষ্য হবে, মানুষ যেন বলে আওয়ামী লীগ সরকার যা বলে তা সঠিক সময় নিষ্ঠার সঙ্গে বাস্তবায়ন করে। মেধা দিয়ে পরিশ্রম করে কাজ করবো। তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে এক পরিবার হয়ে কাজ করবো। তবে পরিবারে যদি কোনও দুর্নীতিগ্রস্ত থাকে তবে তাকে মেনে নেব না।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমার দরজা সব সময় খোলা। আমি প্রটোকলে বিশ্বাস করি না। সেটা আমার ভালো লাগে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার সাফল্যের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখবে। তবে অন্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কে আমাকে কোনও প্রশ্ন করবেন না। যা আমার এখতিয়ার বর্হিভূত ও অশোভন। আমাকে দিয়ে এখতিয়ার বহির্ভুত ও অশোভন কাজ করাবেন না। একটি চ্যালেঞ্জিং মন্ত্রণালয় থেকে অন্য একটি মন্ত্রণালয়ে দায়িত্ব দিয়েছে। আমি সেখানেই কাজ করবো। চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করা শিখেছি প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে। অসততা ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করেছি, আগামীতেও করবো। শোভনতার মাত্রা অতিক্রম করবো না। আমি প্রধানমন্ত্রীর মুখ উজ্জ্বল রাখতে চাই। যেটা আগেও করেছি, এখনও করবো। কাজে সফল হলে প্রশংসা করবেন, ব্যর্থ হলে আঙুল তুলে দেখিয়ে দেবেন।’

একে/এম

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT