পাকিস্তানে দুটি এক্সপ্রেস ট্রেনের সংঘর্ষে নিহত ৩০, আটকা পড়েছেন অন্তত ১৫ জন - CTG Journal পাকিস্তানে দুটি এক্সপ্রেস ট্রেনের সংঘর্ষে নিহত ৩০, আটকা পড়েছেন অন্তত ১৫ জন - CTG Journal

বুধবার, ১৬ Jun ২০২১, ০৬:৫৯ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
স্ত্রী-সন্তানসহ ৩ জনকে হত্যার কারণ অনুসন্ধানে পুলিশ সিনহা হত্যা মামলায় প্রদীপের জামিন শুনানি ২৭ জুন অর্থপাচারের অভিযোগ নিয়ে যা বলছে ‘বিগো’ ভারতের সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ থাকবে আরও ১৬ দিন আমাকে ধর্ষণ এবং হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে: পরীমনি বিলাসিতা ও অনাহার: বৈষম্যে ভরা মহামারির দুই দিক ঢাকায় পৌঁছালো চীনা ভ্যাকসিনের আরও ৬ লাখ ডোজ রাজনীতি না চিকিৎসা, কী বেছে নেবেন খালেদা জিয়া সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যা মামলায় জামিন মিলেনি আসামির পার্বত্য উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান হলেন নিখিল কাপ্তাই পাওয়ার গ্রীড হতে চুরি হওয়া ২টি ব্যাটারীসহ ১ জন আটক গ্রেফতার এড়াতেই এএসআই সালাহ উদ্দিনকে হত্যা?
পাকিস্তানে দুটি এক্সপ্রেস ট্রেনের সংঘর্ষে নিহত ৩০, আটকা পড়েছেন অন্তত ১৫ জন

পাকিস্তানে দুটি এক্সপ্রেস ট্রেনের সংঘর্ষে নিহত ৩০, আটকা পড়েছেন অন্তত ১৫ জন

কার্যত বিভীষিকায় পরিণত হয়েছে দুর্ঘটনাস্থল। চারিদিকে উল্টে আছে ট্রেনের সবুজ বগি। কয়েকটি বগি রীতিমতো দুমড়ে-মুচড়ে গিয়েছে।দুর্ঘটনাস্থল।

পাকিস্তানে দুটি ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষে কমপক্ষে ৩০ জন মারা গেছেন। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৫০ জন। 

ট্রেনের মধ্যে এখনও ১৫ জন আটকে আছেন বলে আশঙ্কা উদ্ধারকারীদের। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। 

সোমবার দক্ষিণ পাকিস্তানের উচ্চ সিন্ধ জেলার ঘোটকির ধারকি নামক স্থানের কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে। 

পাকিস্তান রেলের মুখপাত্র জানিয়েছেন, করাচি থেকে সারগোধা মিল্লাত এক্সপ্রেস লাইনচ্যুত হয়ে যায়। কয়েকটি বগি অন্য লাইনে চলে যায়। সেই সময় উলটোদিক থেকে আসছিল রাওয়ালপিন্ডি-করাচি স্যার সইদ এক্সপ্রেস। তখনই দুই ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। 

পাকিস্তানের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত ছবিতে দেখা যাচ্ছে, কার্যত বিভীষিকায় পরিণত হয়েছে দুর্ঘটনাস্থল। চারিদিকে উল্টে আছে ট্রেনের সবুজ বগি। কয়েকটি বগি রীতিমতো দুমড়ে-মুচড়ে গিয়েছে।

ঘোটকির ডেপুটি কমিশনার উসমান আবদুল্লাহ জানিয়েছেন, কমপক্ষে ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। ৫০ জন আহত হয়েছেন। দুর্ঘটনায় ১৩ থেকে ১৪ টি বগি উলটে গিয়েছে বলে জানান তিনি। 

ছয় থেকে আটটি বগি ‘সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস’ হয়েছে। উদ্ধারকারীরা জানিয়েছেন, ট্রেনের ভেতর একটি বগিতে এখনও যাত্রীরা আটকে আছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। 

ইতোমধ্যে বড় যন্ত্রপাতি আনা হয়েছে। কিন্তু তাদের উদ্ধার করার কাজ যথেষ্ট জটিল হয়ে পড়েছে। রোহরি থেকে রওনা দিয়েছে উদ্ধারকারী দল। সেইসঙ্গে ঘোটকি ও আশপাশের হাসপাতালে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। 

ঘোটকির সিনিয়র পুলিশ সুপার উমর তুফেল জানিয়েছেন, মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT