রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৬:০১ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
রোহিঙ্গা ও আটকে পড়া পাকিস্তানিরা বাংলাদেশের বোঝা: প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনিসহ মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষার সূচি প্রকাশ দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন ১ কোটি ৮২ লাখ মানুষ পরমাণু শক্তি আমরা শান্তির জন্য ব্যবহার করবো: প্রধানমন্ত্রী দক্ষিণ এশিয়ায় করোনার ধাক্কা সামলানোর শীর্ষে বাংলাদেশ স্কুল শিক্ষার্থীদের শিগগিরই টিকা দেওয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী শারদীয়া দুর্গাপুজা উপলক্ষে কাপ্তাইয়ে মন্দিরে আর্থিক সহায়তা প্রদান করলেন সেনা জোন রামগড়ে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পথে কামাল ‘করোনা পরবর্তী পরিবেশ ও জলবায়ু সহনশীল পুনরুদ্ধার পরিকল্পনা জরুরি’ ৬ ছাত্রের চুল কেটে দেওয়া শিক্ষক কারাগারে জাতীয় পার্টির নতুন মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচন ১১ নভেম্বর
পদোন্নতির পর ঝুঁকিভাতা কমে যায় পুলিশের !

পদোন্নতির পর ঝুঁকিভাতা কমে যায় পুলিশের !

সিটিজি জার্নাল নিউজঃ বাংলাদেশ পুলিশের বয়সভিত্তিক ঝুঁকিভাতা নিয়ে কনস্টেবল থেকে উপ-পরিদর্শক (এসআই) পর্যন্ত সদস্যদের মধ্যে উষ্মার সৃষ্টি হয়েছে। কারণ, চাকরির বয়স অনুযায়ী এসব সদস্য যে পরিমাণ ঝুঁকিভাতা পান, পদোন্নতির পর তা কমে যায়। বিষয়টি নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও অর্থ মন্ত্রণালয়ে কয়েক দফায় পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা কথা বলেছেন। এরপর গতবছর অর্থ মন্ত্রণালয় ফের একটি প্রজ্ঞাপন জারি করলেও ঝুঁকিভাতা সংক্রান্ত এই সমন্বয়হীনতা দূর হয়নি।

২০১৫ সালের ১৮ অক্টোবর অর্থ মন্ত্রণালয় জাতীয় বেতন স্কেলের আওতাভুক্ত পুলিশের কনস্টেবল, এএসআই, এসআই , সার্জেন্ট ও টিএসআই পদমর্যাদার সদস্যদের ঝুঁকিভাতা সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে। এই প্রজ্ঞাপনে চাকরির বয়সভিত্তিক ঝুঁকিভাতা নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। এসব পদে কর্মরত সদস্যদের চাকরির শুরু থেকে পাঁচ বছর পরপর ঝুঁকিভাতার পরিমাণ নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ, কর্মরত সদস্যরা তাদের কর্মজীবনে পাঁচটি ক্যাটাগরিতে চাকরির বয়স অনুযায়ী ঝুঁকিভাতা পাবেন। যেমন, একজন কনস্টেবল চাকরির শুরু থেকে পাঁচ বছর পর্যন্ত দেড় হাজার টাকা, পাঁচ থেকে দশ বছর চাকরির মেয়াদকালে  এক হাজার ৮০০ টাকা, ১০ থেকে ১৫ বছরে দুই হাজার ২০০ টাকা, ১৫ থেকে ২০ বছরে আড়াই হাজার টাকা এবং ২০ থেকে তার তদূর্ধ মেয়াদে একজন পুলিশ সদস্য তিন হাজার টাকা ঝুঁকিভাতা পাবেন।

একই আদেশে নায়েক পদমর্যাদার সদস্যরা চাকরির শুরুর প্রথম পাঁচ বছর এক হাজার ৭০০ টাকা, পরের পাঁচ থেকে ১০ বছর দুই হাজার টাকা, ১০ থেকে ১৫ বছরে দুই হাজার ৪০০ টাকা, ১৫ থেকে ২০ বছরে দুই হাজার ৯০০ টাকা, ২০ থেকে তদূর্ধ তিন হাজার ৪০০ টাকা ঝুঁকিভাতা পান।

এএসআই (সশস্ত্র) চাকরির প্রথম পাঁচ বছর এক হাজার ৮০০ টাকা, পাঁচ থেকে ১০ বছর দুই হাজার ২০০ টাকা, ১০ থেকে ১৫ বছর চাকরির বয়স দুই হাজার ৭০০ টাকা, ১৫ থেকে ২০ বছরে তিন হাজার ২০০ টাকা এবং চাকরির বয়স ২০ থেকে তদূর্ধ তিন হাজার ৮০০ টাকা ঝুঁকিভাতা পাবেন।

এসআই, সার্জেন্ট ও টিএসআই সদস্যরা চাকরির শুরু থেকে প্রথম পাঁচ বছর দুই হাজার ৭০০ টাকা ঝুঁকিভাতা পান। পাঁচ থেকে ১০ বছর চাকরির মেয়াদে তিন হাজার ২০০ টাকা, ১০ থেকে ১৫ বছরে তিন হাজার ৮০০ টাকা, ১৫ থেকে ২০ বছর চাকরির বয়স হলে সাড়ে চার হাজার টাকা এবং ২০ থেকে তদূর্ধ চাকরির মেয়াদে সদস্যরা পাঁচ হাজার ৪০০ টাকা ঝুঁকিভাতা পান।

২০১৫ সালের এই প্রজ্ঞাপন ২০১৬ সালের ১ জুলাই থেকে কার্যকর হয়। প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী কনস্টেবল থেকে এসআই পর্যন্ত সমর্যাদার চার পদে কর্মরত পুলিশ সদস্যরা বর্তমানে এই ঝুঁকিভাতা পাচ্ছেন। এদের মধ্যে কনস্টেবল ও এসআই পদে সরাসরি নিয়োগ রয়েছে। বাকি পদে পদোন্নতি দিয়ে পূরণ করা হয়।

২০১৫ সালের আগে তারা সবাই ৩০ শতাংশ করে ঝুঁকিভাতা পেতেন।

একজন কনস্টেবলকে পদোন্নতি পেতে গড়ে ন্যূনতম ৮ থেকে ১০ বছর সময় লাগে। কারও কারও আরও বেশি সময় লাগে। পদোন্নতি পেয়ে তিনি এএসআই হন। কনস্টেবল পদে চাকরির মেয়াদ দশ বছর হলে তিনি নূন্যতম দুই হাজার ২০০ টাকা ঝুঁকিভাতা পান। তবে কনস্টেবল থেকে পদোন্নতি পেয়ে যখন তিনি এএসআই হন তার ঝুঁকিভাতা কমে এক হাজার ৮০০ টাকা হয়ে যায়। ঠিক একইভাবে একজন নায়েক দশ বছর চাকরির পর যখন পদোন্নতি পান, তার দুই হাজার ৪০০ টাকার ঝুঁকিভাতা এক হাজার ৮০০ টাকায় নেমে আসে। আবার একজন এএসআই পদে ১৫ বছর চাকরি করার সময় ‍ঝুঁকিভাতা পান তিন হাজার ২০০ টাকা। কিন্তু পদোন্নতি পেয়ে তিনি এসআই, সার্জেন্ট বা টিএসআই হলে তার ঝুঁকিভাতা কমে দুই হাজার ৭০০ টাকা হয়।

এ নিয়ে ঝুঁকিভাতা পাওয়া পুলিশ সদস্যদের মধ্যে ক্ষোভ রয়েছে। এসব পদে কর্মরত একাধিক পুলিশ সদস্য বলেন, ১৫/২০ বছর চাকরি করার পর পদোন্নতি পেলে একজন পুলিশ সদস্যের চাকরি নতুন করে শুরু হয়। অথচ সার্ভিস বুকে  পুরনোই থেকে যাই।

পুলিশ সদর দফতরে কর্মরত এক কনস্টেবল গত বছর পদোন্নতি পেয়ে এএসআই হয়েছেন। তিনি কনস্টেবল থাকাকালীন চাকরির বয়স অনুযায়ী দুই হাজার ৮০০ টাকা ঝুঁকিভাতা পেতেন। তবে পদোন্নতি পাওয়ার পর তার ঝুঁকিভাতা কমে এক হাজার ৮০০ টাকা হয়েছে। অর্থাৎ, এএসআই পদে নুতন হওয়ায় তিনি ঝুঁকিভাতা এ হারেই পাবেন।

পুলিশ সদর দফতরে এক কর্মকর্তা বলেন, ঝুঁকিভাতা নিয়ে পুলিশ সদস্যদের এই ক্ষোভের কথা পুলিশ মহাপরিদর্শক, স্বরাষ্ট্র সচিব ও মন্ত্রী জানেন। বিষয়টি মন্ত্রণালয়কেও জানানো হয়েছে। এরপর এই সমস্যা সমাধানের জন্য গত বছরের ২৩ আগস্ট অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে ঝুঁকিভাতা সংক্রান্ত একটি আদেশ দিয়ে পুনরায় প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে অর্থ মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. গোলাম মোস্তফা স্বাক্ষরিত ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ‘ঝুঁকিভাতার আওতাভুক্ত পুলিশ সদস্যরা পদোন্নতিজনিত কারণে নিম্নপদে প্রাপ্য ঝুঁকিভাতা থেকে কম পরিমাণ ঝুঁকিভাতা প্রাপ্য হলে উপর্যুক্ত প্রজ্ঞাপনের সারনিতে পদোন্নতিপ্রাপ্ত পদের বিপরীতে উল্লিখিত হারের সমধাপে বা উচ্চধাপে পৌঁছানোর পূর্ব পর্যন্ত নিম্নপদে আহরিত ঝুঁকিভাতার সমপরিমাণ ভাতা প্রাপ্য হবে।’

তবে এই প্রজ্ঞাপনের পরও ঝুঁকিভাতা সংক্রান্ত জটিলতার সমাধান হয়নি। সেই ২০১৫ সালের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী ঝুঁকিভাতা দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ সদর দফতর।

এর কারণ হিসেবে এক কর্মকর্তা বলেন, ঝুঁকিভাতার ক্ষেত্রে ‘চাকরির কাল বা বয়স’ বিবেচনা করে দেওয়া হচ্ছে। সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে পেনশন, ছুটি ও গ্র্যাচুইটি এই সমস্ত ক্ষেত্রে ‘চাকরির কাল’ বলতে যেটা বোঝায় পুলিশের ঝুঁকিভাতা দেওয়ার ক্ষেত্রে সেটা স্পষ্ট নয়। ডিএসআর এ চাকরির কাল কোনটা ধরা হবে সেটা স্পষ্ট নয়। এখানে চাকরির কাল বলতে পদের কালকে বোঝানো হয়েছে। তাই ঝুঁকিভাতা কমে যায়। অর্থাৎ, একজন কনস্টেবল ১০/১৫ চাকরি করার সময় যে ঝুঁকিভাতা পেতেন পদোন্নতি পাওয়ার পর তিনি ওই নতুন পদ অনুযায়ী ঝুঁকিভাতা পান। এখানেই সমস্যা। নতুন পদে তার চাকরি শূন্য থেকে শুরু হয় বলে ঝুঁকিভাতার ক্ষেত্রে ধরে নেওয়া হয়। তাই ঝুঁকিভাতাও কমে যায়। তবে একজন মানুষের চাকরির কাল তার চাকরির শুরু থেকেই হওয়ার কথা। যদি চাকরির বয়স অনুযায়ী ঝুঁকিভাতা প্রদান করা হয়।’

এই কর্মকর্তা বলেন, শুরুতে পুলিশ সদস্যরা চাকরির বয়স অনুযায়ী ঝুঁকিভাতা পেতেন। তবে ২০১৫ সালের প্রজ্ঞাপনে অর্থ মন্ত্রণালয় সেই বিষয়টি পরিবর্তন করে পদের মেয়াদ অনুযায়ী ঝুঁকিভাতা প্রদান করে। এজন্য পদোন্নতি পেলেও তার ঝুঁকিভাতা কমে যায়।

এর সমাধানের উপায় উল্লেখ করে এই কর্মকর্তা বলেন, চাকরির কাল বলতে যদি পুরো কর্ম সময়টিকে বোঝানো হয়, তাহলে এ নিয়ে আর কোনও সমস্যা হওয়ার কথা নয়। অর্থাৎ চাকরির বয়স বলতে সংশ্লিষ্ট কর্মপদ না বুঝিয়ে মোট চাকরির বয়স বুঝালে এই সমস্যার সমাধান সম্ভব। আমরা সেভাবেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে বিষয়টি উত্থাপন করেছি। এটা নিয়ে কাজ চলছে।

এ বিষয়ে পুলিশ সদর দফতরের মিডিয়া ও পাবলিক রিলেশনস বিভাগের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি) সোহেলী ফেরদৌস জানান, প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী সবাই ঝুঁকিভাতা পান।

একে/এম

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT