জামাই-শ্বশুরের প্রতারণার ফাঁদ! - CTG Journal জামাই-শ্বশুরের প্রতারণার ফাঁদ! - CTG Journal

বুধবার, ১২ মে ২০২১, ১১:৫৯ অপরাহ্ন

        English
জামাই-শ্বশুরের প্রতারণার ফাঁদ!

জামাই-শ্বশুরের প্রতারণার ফাঁদ!

রাজশাহী নগরীর একটি রোগ নির্ণয় কেন্দ্রে চিকিৎসকের কাছে গিয়েছিলেন এক ব্যবসায়ী। সেখানে এক নারীর সঙ্গে পরিচয়। কথায় কথায় ওই নারীর বাড়িতে যান তিনি। যাওয়ার পর ওই নারীর সঙ্গে ব্যবসায়ীর আপত্তিকর ছবি তোলেন তার স্বামী। এর পর শুরু হয় চাঁদাবাজি। গত বুধবার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী থানায় অভিযোগ করেন। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ দুই জনকে গ্রেফতার করেছে।

এরা হলেন, নগরীর কয়েরদাঁড়া এলাকার রবিউল ইসলাম (৪৮) ও আরিফ হোসেন (২৮)। সম্পর্কে তারা শ্বশুর-জামাই।

রাজশাহী নগরীর রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল ইসলাম বলেন, এরা একটি চক্রের সদস্য। এ রকম পরিচয়ে তাদের সবাই চেনে। তারা বিভিন্ন মানুষকে কথায় ভুলিয়ে বাসায় ডেকে নিয়ে গিয়ে ফাঁসিয়ে দেয়। নারীর সঙ্গে জোর করে আপত্তিকর ছবি তোলে। তারপর টাকা-পয়সা আদায় করে। এটাই তাদের পেশা। একটি অভিযোগ পেয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে।

ওসি মাজহারুল ইসলাম আরও জানান, নাটোরের বড়াইগ্রাম থেকে এক ব্যবসায়ী শহরের একটি রোগ নির্ণয় কেন্দ্রে এসেছিলেন। সেখানেই রবিউলের দ্বিতীয় স্ত্রীর সঙ্গে তার পরিচয় হয়। ওই নারী তাকে বাসায় ডেকে নিয়ে যান। ওই ব্যবসায়ী সেখানে গেলে রবিউল তার স্ত্রীর সঙ্গে জোর করে আপত্তিকর ছবি তোলে। তখন রবিউলের জামাতা আরিফসহ আরও তিনজন ছিল। তারা ওই ব্যবসায়ীর কাছ থেকে পাঁচ হাজার টাকা কেড়ে নেয়। এরপর তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।

ওই ব্যবসায়ীর কাছে আরও দুই লাখ টাকা চাওয়া হয়েছিল। টাকা না দিলে আপত্তিকর ছবি ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়। এ কারণে ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী থানায় এসে অভিযোগ করেন। পরে অভিযান চালিয়ে বুধবার (২৮ এপ্রিল) রাতে রবিউল ও তার জামাতা আরিফকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী মামলা করেছেন। বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) বিকালে আসামিদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ওসি মাজহারুল ইসলাম আরও জানান, মামলায় রবিউলের স্ত্রীসহ আরও তিন জন আসামি আছেন। তারা পলাতক। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT