জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১৯, মঞ্চ মাতাবেন ফেরদৌস-অপু, সাইমন-মাহি ও ফারিয়া - CTG Journal জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১৯, মঞ্চ মাতাবেন ফেরদৌস-অপু, সাইমন-মাহি ও ফারিয়া - CTG Journal

শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ১২:০৬ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
ফেসবুকে নেতিবাচক মন্তব্য, ১০ শিক্ষককে কারণ দর্শানোর নোটিশ বাজেটে নতুন ও ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের বিশেষ সহায়তার প্রস্তাব ডিসিসিআই ও বিসিআইয়ের শিশু অপরাধীর সর্বোচ্চ সাজা ১০ বছর: হাইকোর্ট প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধান করা উচিত: প্রধানমন্ত্রী মানিকছড়িতে ইউসিসিএ লি. চেয়ারম্যানকে বিদায় ও বরণ করে নিলেন উপজেলা পরিষদ টিকা নিয়েছেন ৩৫ লাখ ৮১ হাজার মানুষ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালুর প্রাকপ্রস্তুতি জানতে চেয়েছে সরকার যেসব ইউনিয়নে ১১ এপ্রিল ভোট কলিমুল্লাহ’র বক্তব্য রুচি বিবর্জিত: শিক্ষা মন্ত্রণালয় করোনার টিকা নিলেন প্রধানমন্ত্রী কারাগারে কয়েদিকে নির্যাতনের অভিযোগে মামলা, পিবিআই’কে তদন্তের নির্দেশ রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মিললো তিন কোটি টাকার ‘আইস’
জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১৯, মঞ্চ মাতাবেন ফেরদৌস-অপু, সাইমন-মাহি ও ফারিয়া

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১৯, মঞ্চ মাতাবেন ফেরদৌস-অপু, সাইমন-মাহি ও ফারিয়া

১৭ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বসছে সিনেমার সবচেয়ে সম্মানজনক আসর ‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১৯’।

করোনার প্রকোপ থাকলেও বিশেষ ব্যবস্থায় এবারও থাকছে সাংস্কৃতিক আয়োজন। ৪০ মিনিটের সংক্ষিপ্ত অনুষ্ঠান হবে। বিষয়টি বাংলা ট্রিবিউন-কে নিশ্চিত করেছেন এর সমন্বয়ের দায়িত্বে থাকা বিটিভির মহাপরিচালক এস এম হারুন অর রশীদ।

সাংস্কৃতিক আয়োজনে সিনেমার গানে মঞ্চ মাতাবেন পাঁচ তারকা। এরমধ্যে জুটিবেঁধে আসবেন ফেরদৌস আহমেদ ও অপু বিশ্বাস, সাইমন সাদিক ও মাহিয়া মাহি এবং এককভাবে নুসরাত ফারিয়া। তারা একাধিক গানে নাচ পরিবেশন করবেন।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের শুরু ও শেষ হবে সাদিয়া ইসলাম মৌ ও ওয়ার্দা রিহাবের দলের নৃত্য পরিবেশনায়।

এছাড়া গান গাইবেন লিজা, ঐশীসহ আরও তিন শিল্পী।

দুটি পর্বে ভাগ হয়ে চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানটি হবে। যার দ্বিতীয় ভাগে থাকবে এই সাংস্কৃতিক আয়োজন।

সমন্বয়ক ও বিটিভির মহাপরিচালক এস এম হারুন অর রশীদ বলেন, ‘এবার প্রায় সব একই থাকবে। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বক্তৃতা ও পুরস্কার থাকবে। আর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে চলচ্চিত্রশিল্পীদের পারফরম্যান্স, গান ও নৃত্য থাকছে। সবকিছুই হবে সীমিত পরিসরে।’

জানা যায়, স্বাগত ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যসহ চারটি বক্তৃতা থাকছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে তথ্য মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মো. সাইফুল ইসলাম (চলচ্চিত্র) বলেন, ‘অন্যান্যবারের মতো এবারেও সবকিছু একই থাকবে। তবে পার্থক্য হলো মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। এছাড়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে সব আগের মতোই হবে।’

সাংস্কৃতিক আয়োজনের জন্য রীতিমতো রিহার্সাল চলছে জানিয়ে চিত্রনায়ক সাইমন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘‘আমরা সময় করে রিহার্সালও করছি। আমি ও মাহি ‘জান্নাত’সহ আরও একটি ছবির গানে অংশ নেবো। আমরা ইতোমধ্যে এগুলোর অনুশীলন করেছি।’’

বাংলাদেশের চলচ্চিত্র শিল্পে গৌরবোজ্জ্বল ও অসাধারণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ এবার ২৬টি বিভাগে পুরস্কার প্রদান করা হবে।

প্রতিবার প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে পুরস্কার গ্রহণের সুযোগ পেলেও করোনার কারণে এবার সেই সৌভাগ্য থেকে বঞ্চিত হতে যাচ্ছেন শিল্পীরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন অনলাইনে।

২০১৯ সালের জন্য আজীবন সম্মাননা পাচ্ছেন মাসুদ পারভেজ (সোহেল রানা) ও কোহিনূর আক্তার সুচন্দা।

একনজরে ‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১৯’ বিজয়ীদের তালিকা:

আজীবন সম্মাননা: মাসুদ পারভেজ (সোহেল রানা) ও কোহিনূর আক্তার সুচন্দা

শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র: ন’ ডরাই ও ফাগুন হাওয়ায়

শ্রেষ্ঠ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র: নারী জীবন

শ্রেষ্ঠ প্রামাণ্য চলচ্চিত্র: যা ছিল অন্ধকারে

শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র পরিচালক: তানিম রহমান অংশু (ন’ ডরাই)

শ্রেষ্ঠ অভিনেতা: তারিক আনাম খান (আবার বসন্ত)

শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী: সুনেরাহ বিনতে কামাল (ন’ ডরাই)

শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব-অভিনেতা: ফজলুর রহমান বাবু (ফাগুন হওয়ায়)

শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব-অভিনেত্রী: নারগিস আক্তার (মায়া- দ্য লস্ট মাদার)

শ্রেষ্ঠ খল অভিনেতা: জাহিদ হাসান (সাপলুডু)

শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পী: নাইমুর রহমান আপন (কালো মেঘের ভেলা) ও আফরীন আক্তার (যদি একদিন)

শ্রেষ্ঠ সংগীত পরিচালক: মোস্তাফিজুর রহমান ইমন (মায়া- দ্য লস্ট মাদার)

শ্রেষ্ঠ নৃত্যপরিচালক: হাবিবুর রহমান (মনের মতো মানুষ পাইলাম না)

শ্রেষ্ঠ গায়ক: মৃণাল কান্তি দাস (তুমি চাইয়া দেখো- শাটল ট্রেন)

শ্রেষ্ঠ গায়িকা: মমতাজ বেগম (বাড়ির ওই পূর্বধারে- মায়া- দ্য লস্ট মাদার) ও ফাতিমা-তুয যাহরা ঐশী (মায়া, মায়ারে- মায়া- দ্য লস্ট মাদার)

শ্রেষ্ঠ গীতিকার: নির্মলেন্দু গুণ (ইস্টিশনে জন্ম আমার- কালো মেঘের ভেলা) ও কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী (চল হে বন্ধু- মায়া- দ্য লস্ট মাদার)

শ্রেষ্ঠ সুরকার: প্লাবন কোরেশী (বাড়ির ওই পূর্বধারে- মায়া দ্য লস্ট মাদার) ও তানভীর তারেক (আমার মায়ের আঁচল- মায়া দ্য লস্ট মাদার)

শ্রেষ্ঠ কাহিনিকার: মাসুদ পথিক (মায়া-দ্য লস্ট মাদার)

শ্রেষ্ঠ চিত্রনাট্যকার: মাহবুব উর রহমান (ন’ ডরাই)

শ্রেষ্ঠ সংলাপ রচয়িতা: জাকির হোসেন রাজু (মনের মতো মানুষ পাইলাম না)

শ্রেষ্ঠ সম্পাদক: জুনায়েদ আহমেদ হালিম (মায়া- দ্য লস্ট মাদার)

শ্রেষ্ঠ শিল্প নির্দেশক: মোহাম্মদ রহমত উল্লাহ বসু ও ফরিদ আহমেদ (মনের মতো মানুষ পাইলাম না)

শ্রেষ্ঠ চিত্রগ্রাহক: সুমন কুমার সরকার (ন’ ডরাই)

শ্রেষ্ঠ শব্দগ্রাহক: রিপন নাথ (ন’ ডরাই)

শ্রেষ্ঠ পোশাক ও সাজসজ্জা: খন্দকার সাজিয়া আফরিন (ফাগুন হাওয়ায়)

শ্রেষ্ঠ মেকআপম্যান: রাজু (মায়া- দ্য লস্ট মাদার).

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT