রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৪:৪৯ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
রোহিঙ্গা ও আটকে পড়া পাকিস্তানিরা বাংলাদেশের বোঝা: প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনিসহ মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষার সূচি প্রকাশ দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন ১ কোটি ৮২ লাখ মানুষ পরমাণু শক্তি আমরা শান্তির জন্য ব্যবহার করবো: প্রধানমন্ত্রী দক্ষিণ এশিয়ায় করোনার ধাক্কা সামলানোর শীর্ষে বাংলাদেশ স্কুল শিক্ষার্থীদের শিগগিরই টিকা দেওয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী শারদীয়া দুর্গাপুজা উপলক্ষে কাপ্তাইয়ে মন্দিরে আর্থিক সহায়তা প্রদান করলেন সেনা জোন রামগড়ে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পথে কামাল ‘করোনা পরবর্তী পরিবেশ ও জলবায়ু সহনশীল পুনরুদ্ধার পরিকল্পনা জরুরি’ ৬ ছাত্রের চুল কেটে দেওয়া শিক্ষক কারাগারে জাতীয় পার্টির নতুন মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচন ১১ নভেম্বর
‘ছেলের নাম বাবা ঘোষণা করে, এটা কেমন গণতন্ত্র’

‘ছেলের নাম বাবা ঘোষণা করে, এটা কেমন গণতন্ত্র’

সিটিজি জার্নাল নিউজঃ বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল মিন্টু তার ছেলে তাবিথ আউয়ালকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করার সমালোচনা করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘বিএনপিতে কোনও গণতন্ত্র নেই। বাবা ছেলের নাম ঘোষণা করে, এটা কেমন গণতন্ত্র?’

বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর) সকালে গুলিস্তানের বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। শীতবস্ত্র বিতরণ করতে গিয়ে বিশৃঙ্খলাও তৈরি হয়।

অনুষ্ঠানে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দেখলাম বাবা তার ছেলেকে বিএনপির উত্তরের মেয়র প্রার্থী ঘোষণা করেছে। এটা আওয়ামী লীগ কখনও করে না। বাবা বিএনপির নেতা, তিনি তার ছেলেকে মনোনয়ন দিয়েছেন। সেই ছেলের নাম আবার এসেছে প্যারাডাইজ পেপারে।’

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে হলে আমাদের মনোনয় বোর্ড থেকে নাম আসবে। আমি পার্টির সাধারণ সম্পাদক, হঠাৎ করে বলে দিলাম যে আওয়ামী লীগের অমুক প্রার্থী— এটা আমাদের দলে হবে না। এই যে দেখুন, বিএনপিতে কোনও গণতন্ত্র নেই। হঠাৎ করে নিজের ছেলেকে প্রার্থী বলে দিলেন। এতেই বোঝা যায়, কোন দলে গণতন্ত্র আছে আর কোন দলে নেই। এ কেমন গণতন্ত্র যে বাবা তার ছেলের নাম ঘোষণা করে?’

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ বড় দল। বড় দলের কিছু সমস্যা থাকে। কিন্তু আমাদের দলের সব চেয়ে বড় বিউটি হচ্ছে— আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা আমাদের পার্টির সভাপতি, তার নেতৃত্বে আমাদের দল ঐক্যবদ্ধ।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমাদের যদি কোনও মেজর সমস্যা হয়, সেই সমস্যার সমাধানে আমরা ব্যর্থ হলে নেত্রীর হস্তক্ষেপে সমস্যার সমাধান হয়। আমাদের পার্টিতে আমরা অনাকাঙ্ক্ষিত কিছু ঘটতে দিচ্ছি না। আমাদের দলের একজন অন্যায় করে শাস্তি পাবে না— এটা হয় না। অন্যায়ের ঘটনা ঘটলে আমরা প্রশাসনিক ও সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিচ্ছি। এমনকি আমাদের দলের নেতাকর্মীরা আদালতে গেলেরও সরকার কোনও হস্তক্ষেপ করছে না।’

তিনি বলেন, ‘নির্বাচনকে সামনে রেখে সুস্থ প্রতিযোগিতা থাকবে। কোনও প্রার্থী আগ্রহ প্রকাশ করতেই পারে। কোনও জায়গায় ১০-১৫ জন প্রার্থী আছে, থাকতে পারে। কিন্তু পার্টির সভাপতি শেখ হাসিনা মনোনয়ন বোর্ডের মাধ্যমে কাউকে চূড়ান্ত মনোনয়ন দেবেন। এ ক্ষেত্রে অসুস্থ প্রতিযোগিতা হলে এর সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি হবে। কারণ, আমাদের দলে সুস্থ গণতন্ত্রের প্রতিযোগিতা হয়। একে আমরা নিজেরাই উদ্বুদ্ধ করি।’ কোনও নির্বাচনে দল থেকে কাউকে মনোনয়ন দেওয়ার পর আওয়ামী লীগে বিদ্রোহী প্রার্থীর পরিমাণ একেবারেই কম হয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

খালেদা জিয়ার মামলায় সরকারের কোনও হাত নেই জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপি নেতারা বলছেন, খালেদা জিয়া নির্দোষ প্রমাণিত হবে। খুব ভালো কথা। আদালতের বিচারে তিনি নির্দোষ প্রমাণিত হলে অবশ্যই খালাস পাবেন। এখানে সরকারের কোনও হস্তক্ষেপ নেই।’

মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ।

একে/এম

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT