বুধবার, ০৬ Jul ২০২২, ০৭:০৩ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
রোহিঙ্গা ও আটকে পড়া পাকিস্তানিরা বাংলাদেশের বোঝা: প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনিসহ মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষার সূচি প্রকাশ দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন ১ কোটি ৮২ লাখ মানুষ পরমাণু শক্তি আমরা শান্তির জন্য ব্যবহার করবো: প্রধানমন্ত্রী দক্ষিণ এশিয়ায় করোনার ধাক্কা সামলানোর শীর্ষে বাংলাদেশ স্কুল শিক্ষার্থীদের শিগগিরই টিকা দেওয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী শারদীয়া দুর্গাপুজা উপলক্ষে কাপ্তাইয়ে মন্দিরে আর্থিক সহায়তা প্রদান করলেন সেনা জোন রামগড়ে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পথে কামাল ‘করোনা পরবর্তী পরিবেশ ও জলবায়ু সহনশীল পুনরুদ্ধার পরিকল্পনা জরুরি’ ৬ ছাত্রের চুল কেটে দেওয়া শিক্ষক কারাগারে জাতীয় পার্টির নতুন মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচন ১১ নভেম্বর
ছাত্রদল-যুবদলের খবর রাখতে ‘গোয়েন্দা নিয়োগ’ করেছেন খালেদা জিয়া

ছাত্রদল-যুবদলের খবর রাখতে ‘গোয়েন্দা নিয়োগ’ করেছেন খালেদা জিয়া

সিটিজি জার্নাল নিউজঃ ছাত্রদল-যুবদল নেতাকর্মীদের কাজকর্ম ও সাংগঠনিক কর্মসূচির বিষয়ে খোঁজ-খবর রাখতে ‘গোয়েন্দা নিয়োগ’ করেছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। একইসঙ্গে বিএনপির নেতারাও এই নজরদারির বাইরে থাকবে না বলে জানিয়েছেন তিনি। মঙ্গলবার (২ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ারিং ইন্সিটিটিউশন মিলনায়তনে ছাত্রদলের সমাবেশে এসব কথা বলেন বিএনপিপ্রধান।

সংগঠনের ৩৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনটির সভাপতি রাজিব আহসান। প্রধান অতিথির বক্তব্যে খালেদা জিয়া ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিন বার কথা বলেন। বক্তব্যের শুরুতে তিনি সংগঠনটির ঐক্যের ওপর জোর দেন। বক্তব্যের মাঝখানে তিনি স্লোগানে নতুনত্ব আনার পরামর্শ দেন। শেষে আগের স্লোগান দেওয়ার কারণে তিনি গত বছরের মতো এবারও বিরক্তি প্রকাশ করেন।

খালেদা জিয়া বলেন, ‘তোমাদের স্লোগানের ধারা পরিবর্তন করতে হবে। জনগণের কি সমস্যা, মানুষের কি সমস্যা, সেগুলো নিয়ে তোমাদের স্লোগান তুলতে হবে। পুরনো স্লোগান চলবে না। একেক পরিস্থিতি, একেক সময়ে স্লোগান তৈরি হয়। এরশাদের সময়কার ডাইরেক্ট অ্যাকশন, আগুন জ্বালো –এগুলো এখন চলবে না। এখন দেশে অনেক সমস্যা। অনেক গুম হচ্ছে। তোমাদের ভাইয়েরা এখন খুন হয়েছে। তোমাদের বহুরকম স্লোগান আছে। সারাদেশের মানুষ অনেক খারাপ আছে। ভয়ে তারা ঘর থেকে বের হতে পারে না। জানে না, কখন কাকে ধরে নেবে।’

ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ভিশন-২০৩০ প্রস্তাবটি পড়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন বলেন, ‘বিএনপিকে জানতে-বুঝতে এটি পড়তে হবে। তবে তোমরা সত্যিকারের বিএনপিকে জানতে পারবে, কথাও বলতে পারবে। ওইসব বাজে স্লোগান দিলে ছাত্র নেতাদের নম্বর কাটা যাবে।’

একই প্রসঙ্গে খালেদা জিয়া আরও বলেন, ‘কে কোন পদে আসতে পারবে, ওইটা দেখে বিচার-বিশ্লেষণ হবে। শুধু চেহারা দেখালে আর ছবি উঠালেই হবে না।’ এসময় তিনি সামনের নেতাকর্মীদের মোবাইল ফোন দেখিয়ে বলেন, ‘ওই যে, বিরক্ত হয়ে গেছি এখন। ওই ১০-১২ জন লোক নিয়ে ছবি উঠালো। এরপর বললো, আমি রাস্তায় ছিলাম, আমি রাস্তায় ছিলাম, আন্দোলন করেছি, মিছিল করেছি, এগুলো আর চলবে না।’ এসময় ছাত্রদলের নেতকর্মীরা স্লোগান দিয়ে খালেদা জিয়ার বক্তব্যের প্রতি সমর্থন জানান।

খালেদা জিয়া যুক্ত করেন, ‘আমরাও বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। আমরাও খবর রাখি, তোমরা কী করো। কিভাবে চলছো। কর্মসূচি দিলে কিভাবে তোমরা পালন করছো। সেগুলো দেখার জন্য আমরা গোয়েন্দা নিয়োগ করেছি। এর মধ্যে ছাত্র-যুবক ও বিএনপির নেতারা থাকবে। কেউ বাদ যাবে না (হেসে)। যাকে যে দায়িত্ব দেওয়া হবে, যে কাজ দেওয়া হবে, সে কাজ করতে হবে।’

খালেদা জিয়া বলেন, ‘বেশি করে তোমাদের পড়তে হবে। বিশেষ করে ছাত্রদের সমস্যা নিয়ে কাজ করতে হবে। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে নানাবিধ সমস্যা আছে। সেগুলো নিয়েও কথা বলতে হবে, আন্দোলন করতে হবে। ছাত্রদের সমস্যা নিয়ে কাজ করতে হবে।’

একে/এম

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT