চীনা রাষ্ট্রদূতের মন্তব্যে বিস্মিত কূটনীতিকরা - CTG Journal চীনা রাষ্ট্রদূতের মন্তব্যে বিস্মিত কূটনীতিকরা - CTG Journal

বুধবার, ১৬ Jun ২০২১, ০৭:৫৯ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
স্ত্রী-সন্তানসহ ৩ জনকে হত্যার কারণ অনুসন্ধানে পুলিশ সিনহা হত্যা মামলায় প্রদীপের জামিন শুনানি ২৭ জুন অর্থপাচারের অভিযোগ নিয়ে যা বলছে ‘বিগো’ ভারতের সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ থাকবে আরও ১৬ দিন আমাকে ধর্ষণ এবং হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে: পরীমনি বিলাসিতা ও অনাহার: বৈষম্যে ভরা মহামারির দুই দিক ঢাকায় পৌঁছালো চীনা ভ্যাকসিনের আরও ৬ লাখ ডোজ রাজনীতি না চিকিৎসা, কী বেছে নেবেন খালেদা জিয়া সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যা মামলায় জামিন মিলেনি আসামির পার্বত্য উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান হলেন নিখিল কাপ্তাই পাওয়ার গ্রীড হতে চুরি হওয়া ২টি ব্যাটারীসহ ১ জন আটক গ্রেফতার এড়াতেই এএসআই সালাহ উদ্দিনকে হত্যা?
চীনা রাষ্ট্রদূতের মন্তব্যে বিস্মিত কূটনীতিকরা

চীনা রাষ্ট্রদূতের মন্তব্যে বিস্মিত কূটনীতিকরা

যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও জাপানের সমন্বয়ে গঠিত জোট কোয়াডে যোগ দিলে ঢাকা-বেইজিং দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের ক্ষতি হবে বলে মন্তব্য করেছেন চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং। সোমবার (১০ মে) ডিপ্লোম্যাটিক করেসপন্ডেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

রাষ্ট্রদূত লি জিমিংয়ের এমন মন্তব্যে কিছুটা বিস্মিত করেছে কূটনীতি বিশেষজ্ঞদের। তাদের বক্তব্য,  কোয়াডে যোগ দেওয়ার বিষয়ে বাংলাদেশকে কেউ আহ্বান জানায়নি, ঢাকাও এ বিষয়ে কখনও আগ্রহ দেখায়নি। এই প্রেক্ষিতে লি জিমিং কেন এই মন্তব্য করলেন সেটি নিয়ে সন্দিহান তারা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সাবেক পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক কোয়াডে বাংলাদেশের যোগদানে অনাগ্রহের বিষয় উল্লেখ করে বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমার জানামতে কোনও ধরনের সামরিক জোটে যোগ দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ কখনও আলোচনা করেছে বা আগ্রহ দেখিয়েছে, এমন কোনও ঘটনা ঘটেনি।’

চীনে বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রদূত মুনশি ফায়েজ আহমেদ বলেন, ‘কোয়াডে যোগ দেবে এ ধরনের কিছু কখনই বাংলাদেশ থেকে বলা হয়নি। বাংলাদেশ ফ্রি অ্যান্ড ওপেন ইন্দো-প্যাসিফিক ভিশন ধারণ করে এবং সেটিও শুধুমাত্র অর্থনৈতিক অংশটুকু। কোনও ধরনের নিরাপত্তা বিষয়ে আমরা যোগ দেবো না, এটি আমাদের সরকারের পরিষ্কার অবস্থান।’

অন্যদেশগুলো বাংলাদেশকে কোয়াডে যোগ দিতে বলেছে এধরনের কোনও ইঙ্গিতও আমরা পাইনি জানিয়ে তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশকে ফ্রি অ্যান্ড ওপেন ইন্দো-প্যাসিফিক ভিশনের বিষয়ে জানিয়েছে কিন্তু কোয়াডে যোগ দেওয়ার বিষয়ে কোনও কথা হয়েছে বলে কখনো শুনিনি।’

তার মতে, চীনের এ বিষয়টি জানা আছে,  হয়তো কোয়াড নিয়ে প্রশ্ন করার কারণে তিনি বলেছেন যে কোয়াড জোটটি নির্বিষ নয়।  কোয়াডের সদস্যরা প্রকাশ্যেই চীনের বিরোধিতা করছে এবং এ বিষয়টিকে বেইজিংএর ভালো চোখে দেখার কোনও সুযোগ নেই। মুনশি ফায়েজ বলেন, এই ধরনের জোটে বাংলাদেশ বা অন্য কোনও দেশ যোগ দিলে চীন পছন্দ করবে না এটিই স্বাভাবিক এবং এই বার্তাটি তারা দিচ্ছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন  কূটনীতিক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, সাধারণত চীন প্রকাশ্যে কিছু বলে না। এবারেই মনে হয় প্রথম তারা এ ধরনের কথা তারা জনসম্মুখে বললো।

কোয়াড চারটি দেশের একটি জোট এবং তারা নতুন কাউকে নিচ্ছে না জানিয়ে ওই কূটনীতিক বলেন, বাংলাদেশকে কোয়াডে কেউ যোগ দিতে বলছে বলে আমার জানা নেই, সে হিসেবে এই বক্তব্যের প্রয়োজন ছিল না। চীনাদের কেউ ভুল বুঝিয়েছে। তাই তারা বাংলাদেশকে নিয়ে টানাহেঁচড়া করছে।

সবার সঙ্গে সুন্দর ব্যবহারের চীনের যে নজির ছিল বেইজিং সেখান থেকে কিছুটা সরে আসছে  জানিয়ে তিনি বলেন, আগে তারা অনেক সতর্ক ছিল কিন্তু এখন এর অভাব দেখা দিচ্ছে। এটি তাদের জন্য ভালো হবে কিনা সেটি ভবিষ্যতে বোঝা যাবে।

ডিপ্লোমেটিক করেসপন্ডেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে চীনা রাষ্ট্রদূত বলেন,  ‌চীন মনে করে কোয়াড একটি গ্রুপ এবং এটি চীনবিরোধী। আমি এটি পরিষ্কার করে বলতে চাই। কোয়াড নিজেকে অর্থনেতিক কাজে সম্পৃক্ত বলে দাবি করে, কিন্তু এটি সত্যি নয়। মূলত কোয়াড করা হয়েছে চীনের বিরোধীতার জন্য।

তিনি বলেন, ‘এই চার সদস্য বিশিষ্ট ক্লাবে যোগ দিলে এটি বাংলাদেশের জন্য ভালো হবে না। কারণ এর ফলে চীনের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে।’

এর আগে, ২৭ এপ্রিল চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী উই ফেঙ্গে একদিনের জন্য ঢাকা সফরে আসেন। এরআগে, মার্চে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শংকর ও এপ্রিলে ভারতের সেনা প্রধান ঢাকা সফর করেন। জয়শংকর ঢাকায় এসে বঙ্গোপসাগর কেন্দ্রিক সংযুক্তির অর্থাৎ ওই সাগর সন্নিবেশিত ৯টি দেশে চীনের উপস্থিতি কমানোর প্রতি ইঙ্গিত করেছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT