চলছে সংঘাত, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩৯ - CTG Journal চলছে সংঘাত, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩৯ - CTG Journal

বুধবার, ১৬ Jun ২০২১, ০৬:১৯ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
স্ত্রী-সন্তানসহ ৩ জনকে হত্যার কারণ অনুসন্ধানে পুলিশ সিনহা হত্যা মামলায় প্রদীপের জামিন শুনানি ২৭ জুন অর্থপাচারের অভিযোগ নিয়ে যা বলছে ‘বিগো’ ভারতের সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ থাকবে আরও ১৬ দিন আমাকে ধর্ষণ এবং হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে: পরীমনি বিলাসিতা ও অনাহার: বৈষম্যে ভরা মহামারির দুই দিক ঢাকায় পৌঁছালো চীনা ভ্যাকসিনের আরও ৬ লাখ ডোজ রাজনীতি না চিকিৎসা, কী বেছে নেবেন খালেদা জিয়া সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যা মামলায় জামিন মিলেনি আসামির পার্বত্য উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান হলেন নিখিল কাপ্তাই পাওয়ার গ্রীড হতে চুরি হওয়া ২টি ব্যাটারীসহ ১ জন আটক গ্রেফতার এড়াতেই এএসআই সালাহ উদ্দিনকে হত্যা?
চলছে সংঘাত, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩৯

চলছে সংঘাত, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩৯

সংঘাত শেষ হওয়ার কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। সংঘাত বন্ধের চেষ্টা করে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র এবং আরব কূটনীতিকরা।ছবি-রয়টার্স

টানা পাঁচদিন সংঘাতের পর ষষ্ঠদিনের মতো শনিবার সকালে গাজায় নতুন করে বিমান হামলা চালানোর পরিকল্পনা করেছে ইসরায়েল। প্রতিক্রিয়া স্বরূপ রকেট ছুঁড়েছে ফিলিস্তিনি সংগঠন হামাস। এদিকে, সংঘাত বন্ধের চেষ্টা করে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র এবং আরব কূটনীতিকরা।

সোমবার থেকে চলতে থাকা ইসরায়েলের হামলায় গাজায় এখন পর্যন্ত ৪০ শিশুসহ ১৩৯ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের মতে, এর বাইরে আহত হয়েছেন আরও ৯৫০ জন। খবর আল-জাজিরার। 

ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্যকর্মীরা জানিয়েছেন গাজায় রাতভর চলতে থাকা বিমান হামলায় গতকাল আরও অন্তত ১২ জন প্রাণ হারিয়েছে। স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা আরও জানান, নিহতদের মধ্যে আছে শরণার্থী শিবিরের একজন নারী ও তার তিন শিশু সন্তান। শিবিরে হামলা চলাকালে তাদের বাড়ি বিধ্বস্ত হয়।

ইসরায়েলি সৈন্যরা জানায় তারা হামাসের সামরিক গোয়েন্দা ব্যবস্থাপনায় হামলা চালিয়েছে। এছাড়া, গাজার উত্তরাঞ্চলেও একাধিক লক্ষ্যবস্তুকে কেন্দ্র করে হামলা চালানোর কথা স্বীকার করে তারা।

এদিকে, ইসরায়েলি বিমান ফিলিস্তিনের একটি মসজিদ ধ্বংস করেছে বলে জানিয়েছে দেশটির ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়। সামরিক একজন মুখপাত্র জানান তারা সংবাদটির সত্যতা যাচাই করছেন। 

ইসরায়েলের দক্ষিণাঞ্চলে হামলা পূর্ববর্তী সাইরেনের মাধ্যমে সেখানকার বাসিন্দাদের নিরাপদ আশ্রয়ে অবস্থান নেওয়ার জন্য সতর্ক করা হয়। বিরশেবা এবং আশদোদ এই দুই শহরের বিভিন্ন ভবনে রকেট হামলা চালানো হয়। তবে, তাৎক্ষণিকভাবে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। 

কয়েকদিন ধরে চলতে থাকা এই সহিংসতায় বেড়ে চলেছে হতাহতের সংখ্যা। তবে সংঘাত শেষ হওয়ার কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। শুক্রবার, দখলকৃত পশ্চিম তীরে আন্দোলনকারীদের সাথে ইসরায়েলি নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষে ১১ জন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে ফিলিস্তিন।

ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ইসরায়েলে নিহত আট জনের মধ্যে একজন সেনা সদস্য সহ ছয়জন ছিল বেসামরিক নাগরিক। এর মধ্যে দুইজন শিশু বলেও জানিয়েছে তারা।

এদিকে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রবিবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক বসতে চলেছে। এর আগে, শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের বাইডেন সরকারের মুখপাত্র হিসেবে ইসরায়েল পৌঁছেছেন মার্কিন সরকারের ইসরায়েল এবং ফিলিস্তিন সম্পর্ক বিষয়ক ডেপুটি অ্যাসিস্টেন্ট সেক্রেটারি হ্যাডি আমর।

কার্যকরভাবে পরিস্থিতি শান্ত করতে যৌথভাবে কাজ করার উপর জোর প্রদান করাই যুক্তরাষ্ট্রের লক্ষ্য বলে জানিয়েছে ইসরায়েলের মার্কিন দূতাবাস। 

  • সূত্র-রয়টার্স, আল জাজিরা 

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT