চট্টগ্রামের সি অ্যান্ড এফ এজেন্টস কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে সদস্যদের প্রণোদনা দিতে প্রধানমন্ত্রীর নিকট আবেদন - CTG Journal চট্টগ্রামের সি অ্যান্ড এফ এজেন্টস কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে সদস্যদের প্রণোদনা দিতে প্রধানমন্ত্রীর নিকট আবেদন - CTG Journal

বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ০৫:৫৬ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
সংক্ষিপ্ত সিলেবাস শেষ করেই এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা খালেদা জিয়ার আবেদন ইতিবাচকভাবে দেখছি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিক সত্যজিৎ এর উপর হামলা: জড়িতদের গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবীতে উত্তাল খাগড়াছড়ি রাউজানে খাবার হোটেলে স্বাস্থ্য বিধি অমান্য, জরিমানা এতিমদের সম্মানে সানরাইজ ফাউন্ডেশনের ইফতার ও দোয়া রাউজানে ৪০ জন কৃষক পেল ২০ লক্ষ টাকার কৃষি ঝণ রাউজানে মসজিদ পরিচালনা কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্ব: পলাতক আসামি গ্রেফতার ৫ লাখ ডোজ টিকা আসছে ঈদের আগে ঈদের ছুটিতে কর্মস্থলে থাকতে হবে ব্যাংক কর্মকর্তাদের লামায় ৩০০জন কর্মহীন মানুষকে প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক উপহার প্রদান মহালছড়ি সেনা জোনের ব্যবস্থাপনায় মানবিক সহায়তা রামগড়ে হিমাগার না থাকায় নষ্ট হচ্ছে উৎপাদিত পণ্য, ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছে কৃষক
চট্টগ্রামের সি অ্যান্ড এফ এজেন্টস কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে সদস্যদের প্রণোদনা দিতে প্রধানমন্ত্রীর নিকট আবেদন

চট্টগ্রামের সি অ্যান্ড এফ এজেন্টস কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে সদস্যদের প্রণোদনা দিতে প্রধানমন্ত্রীর নিকট আবেদন

সিটিজি জার্নাল রিপোর্ট : চট্টগ্রাম সি অ্যান্ড এফ এজেন্টস কর্মচারী ইউনিয়ন (সিবিএ- ২৩৪)’র সদস্যদের জন্য বিশেষ প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষনা করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট আবেদন জানিয়েছেন সিবিএ’র সাবেক যুগ্ম সম্পাদক মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া।

তিনি বলেন, আজ বিশ্ব করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাব এ স্তম্ভিত। সারা বিশ্বের বৈশ্বিক সমস্যা এই করোনা ভাইরাস মহামারী, এই মহামারী থেকে রক্ষা পাওয়ার লক্ষে বিশ্বের সকল মানবজাতিকে লক ডাউন অবস্থায় বাসায় অবস্থান করতে হচ্ছে।

একই ধারাবাহিকতায় আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দেশের মানুষ আজ লকডাউন তথা হোম কোয়ারান্টাইন এ অবস্থান করছেন। উদ্দেশ্য একটা ই সামাজিক দুরত্ব সহ সকল প্রকার স্বাস্থ্য শিষ্টাচার আমরা যেন মেনে চলতে পারি এবং আল্লাহ যেন এই করোনা ভাইরাস থেকে আমাদের সকল কে রক্ষা করেন।

কিন্তু অত্যন্ত দুঃখ ভারাক্রান্ত হ্রদয় নিয়ে বলতে হচ্ছে, সরকার কতৃক ঘোষিত লকডাউন লগ্নে যেখানে আমাদের সকল সদস্য ভাইদের ঘরে থাকার কথা সেখানে কাষ্টমস, বন্দর, ডিপো, ইপিজেড, শিপিং, ব্যাংক সহ সব কিছু খোলা রাখার কারনে চট্টগ্রাম সি অ্যান্ড এফ এজেন্টস কর্মচারী ভাইয়েরা আজ স্বাস্থ্য ঝুকি, নিরাপত্তাহীন ও আর্থিক সংকটে দিনাতিপাত করছেন।

সি অ্যান্ড এফ এজেন্টস কর্মচারী ভাইয়েরা মাথার ঘাম পায়ে পেলে জীবন বাজি রেখে প্রতিনিয়ত দিন রাত ২৪ ঘন্টা শ্রম দিয়ে আমদানি ও রপ্তানি কার্যসম্পাদন করে দেশের শিল্প প্রতিষ্ঠান কে টিকিয়ে রাখা সহ দেশের অর্থনৈতিক চাকা সচল রাখতে কঠোর ভূমিকা পালন করে আসছে ঠিক একই সাথে দেশের এই দুর্যোগ মুহূর্তে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সর্ব সাধারণ কে হোম কোয়ারান্টাইনে থাকার নির্দেশ দিলেও আজ সি আ্যন্ড এফ কর্মচারী ভাইয়েরা চট্টগ্রাম কাস্টম, বন্দর,ও সকল ডিফো তে আমদানি রপ্তানি কার্যক্রম সম্পাদনে নিজেকে নিরলস ভাবে নিয়োজিত রেখেছেন, অথচ উক্ত কার্যসম্পাদন এ নেই কোন স্বাস্থ্য সুরক্ষা, নিরাপত্তা, যাতায়াত ব্যবস্হা, খাবারের ব্যবস্হা, এমনকি অসুস্থ হলে নেই কোন অ্যাম্বুম্লেন্স ব্যবস্হা, যেই অ্যাম্বুলেন্স এর কারনে ইতিপূর্বে অনেক কর্মচারী ভাই সঠিক সময়ে চিকিৎসা সেবা নিতে না পারার কারণে মৃত্যুর কাছে হার মেনেছেন।

তিনি আরো বলেন, শুধু তাই নয় জীবিত থাকতে নেই কোন নিরলস কর্মের স্বাধীনতা ও স্বাস্থ্য সেবা এবং মৃত্যুর পর নেই কোন স্হায়ী আর্থিক নিচ্ছয়তা বা ব্যবস্হাপনা। এই তিনটি কারণ সহ উপরোক্ত ও নানাবিধ সমস্যার কারনে প্রায় ১০ হাজার কর্মচারীর প্রায় ৫০ থেকে ৬০ হাজার স্ব স্ব পরিবারের সদস্য নিয়ে আজ দিশেহারা।

আমরা জানি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ইতিপূর্বে অনেক অনেক খেটে খাওয়া অবহেলিত মেহনতী ভাইদের সমস্যা সমাধানে পাশে দাড়িয়েছেন এবং দৃষ্টান্ত স্হাপন করেছেন।

তাই আমাদের অবহেলিত মেহনতী সদস্য কাষ্টমস ও জেটি সরকার ভাইদের পরিবার পরিজন নিয়ে বেছে থাকার তাগিদে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কতৃক ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজ এর আওতায় এনে আমাদের কর্মের অবস্হার অধিকার, নিরাপত্তা, কাজের পরিবেশ ও সন্মান রক্ষায় বীরদর্পে কার্য সম্পাদনে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ায় জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও সম্পৃক্ত সকল সংস্থার প্রতিনিধির নিকট বিনীত অনুরোধ ক্রমে জোর দাবী জানাচ্ছি।

সিবিএ’র এই নেতা সিবিএ-২৩৪’র সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক সহ সকল নেতৃবৃন্দ ও উপদেষ্টা পরিষদ এর নিকট বিনীত অনুরোধ জানিয়ে বলেন, আপনারা যেহেতু দায়িত্বে আছেন আমাদের সকল প্রকার অধিকার বা দাবী আদায়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

আল্লাহ না করুক এই মুহূর্তে আমাদের খেটে খাওয়া মেহনতী ভাই কেউ যদি আক্রান্ত বা মৃত্যু বরণ করে তা হলে এই দায় দায়িত্ব কে নিবে। আমি মনে করি দাবী আদায়ের এখনই সঠিক সময়।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT