শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৬:১৬ অপরাহ্ন

        English
শিরোনাম :
রোহিঙ্গা ও আটকে পড়া পাকিস্তানিরা বাংলাদেশের বোঝা: প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনিসহ মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষার সূচি প্রকাশ দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন ১ কোটি ৮২ লাখ মানুষ পরমাণু শক্তি আমরা শান্তির জন্য ব্যবহার করবো: প্রধানমন্ত্রী দক্ষিণ এশিয়ায় করোনার ধাক্কা সামলানোর শীর্ষে বাংলাদেশ স্কুল শিক্ষার্থীদের শিগগিরই টিকা দেওয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী শারদীয়া দুর্গাপুজা উপলক্ষে কাপ্তাইয়ে মন্দিরে আর্থিক সহায়তা প্রদান করলেন সেনা জোন রামগড়ে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পথে কামাল ‘করোনা পরবর্তী পরিবেশ ও জলবায়ু সহনশীল পুনরুদ্ধার পরিকল্পনা জরুরি’ ৬ ছাত্রের চুল কেটে দেওয়া শিক্ষক কারাগারে জাতীয় পার্টির নতুন মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচন ১১ নভেম্বর
গ্রেনেডসহ চট্টগ্রামে নব্য জেএমবির দুই সদস্য গ্রেফতার

গ্রেনেডসহ চট্টগ্রামে নব্য জেএমবির দুই সদস্য গ্রেফতার

সিটিজি জার্নাল নিউজঃ চট্টগ্রাম নগরীর সদরঘাট থানার শুভপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে নব্য জেএমবির দুই সদস্যকে গ্রেফতার করেছে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট। সোমবার (০১ জানুয়ারি) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় তাদের গ্রেফতার করা হয়। নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (সিটিটিইউ) পলাশ কান্তি নাথ জানান, শুভপুর বাসস্ট্যান্ডের বিপরীত পাশের বড় মিয়া মসজিদের কাছের ৫তলাবিশিষ্ট ১২৬ নম্বর ভবনের পাঁচ তলা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার দুই নব্য জেএমবি সদস্য হলো আশফাকুর রহমান ওরফে আবু মাহের আল বাঙালী ওরফে রাসেল ওরফে সেলেবী তিতুস (২২) ও রাকিবুল হাসান ওরফে জনি ওরফে সালাউদ্দিন আইয়ুবী ওরফে আবু তাইসীর আল বাঙালী (১৯)। এদের মধ্যে আশফাক ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁও এলাকার বাসিন্দা এবং রাকিবুলে গ্রামের বাড়ি কুমিল্লা জেলার কোম্পানিগঞ্জ এলাকায়।

পলাশ কান্তি নাথ বলেন, ‘গোপন খবরের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে নব্য জেএমবির দুই সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে হাতে তৈরি ৮টি গ্রেনেড, দুটি বড় বোমা ও দুটি সুইসাইডাল বেল্ট টার্গেট ওয়ান লেখা স্কেচের একটি ম্যাপ উদ্ধার করা হয়েছে। যেই ম্যাপে সদরঘাট থানাকে মূল টার্গেট করা হয়েছে। কিভাবে যাবে, কোন দিক থেকে এসে অপারেশন করবে সব কিছু তাতে উল্লেখ ছিল। এছাড়া তাদের কাছ থেকে দুটি মোবাইল ও একটি মোবাইল ট্যাব উদ্ধার করা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আমরা জানতে পেরেছি তাদের আমিরের নাম ডন। ডনের আসল নাম আমরা এখনও পাইনি। চট্টগ্রামে পুলিশ অথবা র্যা বের কোনও স্থাপনায় হামলা চালানোর জন্য ডন তাদের পাঠিয়েছে। তারা কাছের সদরঘাট থানাকে টার্গেট হিসেবে গ্রহণ করেছে।’

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘মেসবাহ নামে একজন ওই বাসাটি দুই মাস আগে ভাড়া নিয়েছিল। ভাড়া নেওয়ার সময় তারা বলেছিল তাদের টায়ারের ব্যবসা আছে। পুরাতন টায়ার সংগ্রহ করে তারা ঢাকায় ওই টায়ারগুলো পাঠায়।’

বাসায় কয়জন থাকতেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘বাসায় আসা-যাওয়া করে কয়েকজন থাকতেন। তবে কখনও একই সময় তিন চার জনের বেশি ছিলেন না বলে ভবনের লোকজন জানিয়েছেন।’

একে/এম

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT