কিছু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ব্যাপারে শিক্ষার্থীদের সতর্ক করবে ইউজিসি - CTG Journal কিছু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ব্যাপারে শিক্ষার্থীদের সতর্ক করবে ইউজিসি - CTG Journal

রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ১২:১০ অপরাহ্ন

        English
কিছু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ব্যাপারে শিক্ষার্থীদের সতর্ক করবে ইউজিসি

কিছু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ব্যাপারে শিক্ষার্থীদের সতর্ক করবে ইউজিসি

বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বর্তমান অবস্থার ব্যাপারে ব্যাপারে জানতে শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ওয়েবসাইট যাচাই না করে ইউজিসির ওয়েবসাইট দেখার পরামর্শ দিয়েছে ইউজিসি। 

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনিয়ম:

  • নর্থ সাউথ, জেড এইচ সিকদার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং পুন্ড্র বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় অননুমোদিত প্রোগ্রাম পরিচালনা করছে।
  • সাউথ এশিয়া ইউনিভার্সিটি, স্টামফোর্ড, ড্যাফোডিল, শান্ত-মারিয়াম, ইউডা, সাউথইস্ট ও নর্দার্ন ইউনিভার্সিটির অননুমোদিত ক্যাম্পাস আছে।   
  • ইউনিভার্সিটি অব কুমিল্লার পুনরায় শিক্ষা কার্যক্রম শুরুর অনুমতি নেই।
  • অনুমোদিত ঠিকানা নেই ইবাইস ইউনিভার্সিটির।
  • আইনি চ্যালেঞ্জের মুখে সাউদার্ন ইউনিভার্সিটি। 
     

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের ১৯টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগে পাবলিক সার্কুলার জারি করতে যাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। এসব অনিয়মের অভিযোগের মধ্যে অননুমোদিত ক্যাম্পাস এবং কোর্স-প্রোগ্রাম পরিচালনার অভিযোগ রয়েছে। 

এসব বিশ্ববিদ্যালয়গুলো কোর্টের অস্থায়ী ছাড়পত্র ছাড়াই তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে, বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সাথে বিবাদে জড়িয়ে পড়া, অনুমোদন ছাড়াই বিভিন্ন কোর্স-প্রোগ্রাম পরিচালনা করে এবং অনুমতি পাওয়ার পরও বিভিন্ন শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করতে ব্যর্থ হয়েছে।  উচ্চশিক্ষার জন্য শিক্ষার্থীদের এসব বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুনমোদিত ক্যাম্পাস বেঁচে না নেওয়ার পরামর্শ দেবে ইউজিসি।

ইউজিসির বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শাখার পরিচালক ওমর ফারুক দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড-কে বলেন, তারা ইতোমধ্যেই অনিয়মের সাথে জড়িত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর নাম ইউজিসির ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেছে। “এব্যাপারে পাবলিক সার্কুলার জারি করার পরিকল্পনা আছে আমাদের,” বলেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিচ্ছুক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের এসব বিশ্ববিদ্যালয়ের অননুমোদিত ক্যাম্পাস বেছে না নেওয়ার ব্যাপারে জোর দিয়েছে ইউজিসি। এসব বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বর্তমান অবস্থার ব্যাপারে ব্যাপারে জানতে শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ওয়েবসাইট যাচাই না করে ইউজিসির ওয়েবসাইট দেখার পরামর্শও দিয়েছে ইউজিসি। 

ইউজিসির অনুমোদন ছাড়াই ফিন্যান্স, হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট, ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস, মার্কেটিং, ম্যানেজমেন্ট, ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেমস, অ্যাকাউন্টিং, ইকোনমিকস, ইন্টারপ্রেনারশিপ ও সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্টের কোর্স পরিচালনা করছে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়। 

অনিয়মের ব্যাপারে জানতে চাইলে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম বলেন, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় ও ইউজিসির দৃষ্টিভঙ্গি ভিন্ন।

“ইউজিসির কর্মকর্তারা বিষয়টি বুঝতে পারেননি। আমরা বহু বছর ধরেই এসব কোর্স পরিচালনা করছি। এটি বিশ্ববিদ্যালয় ও ইউজিসির মধ্যকার ভুল বোঝাবোঝি। সমস্যা সমাধানে আগামী সোমবার আমরা ইউজিসির সঙ্গে বৈঠকে বসবো।” বলেন তিনি। 

জেড এইচ সিকদার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং পুন্ড্র বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ও ইউজিসির অনুমোদন ছাড়া বিভিন্ন কোর্স ও প্রোগ্রাম পরিচালনা করছে। 

ইবাইস বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো অনুমোদিত ঠিকানা না থাকায় বিশ্ববিদ্যালয়টির ওয়েবসাইট থেকে ওয়েব পেজ মুছে দিয়েছে ইউজিসি।  

ইউনিভার্সিটি অব কুমিল্লার শিক্ষা কার্যক্রম পুনরায় শুরুর অনুমতি দেয়নি ইউজিসি, অন্যদিকে শিক্ষার্থী ভর্তি ও মালিকানা সংক্রান্ত জটিলতায় আইনি প্রক্রিয়ার মুখে পড়েছে সাউদার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ। 

ব্রিটানিয়া ইউনিভার্সিটি ও সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টি ও সদস্যদের মধ্যে বিরোধ চলছে বলে জানতে পেরেছে ইউজিসি।

এক বছরের মধ্যে প্রয়োজনীয় সব বিধিমালা পূরণের শর্তসাপেক্ষে ২০১৫ সালের ৬ সেপ্টেম্বর কুইনস ইউনিভার্সিটিকে অনুমোদন দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। তবে শেষ সময় পেরিয়ে গেছে অনেক আগেই।

ভিক্টোরিয়া ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ, উত্তরা ইউনিভার্সিটি, শান্ত-মারিয়াম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলোজি, ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অল্টারনেটিভ, সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটি ও নর্দার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশও অননুমোদিত ক্যাম্পাসে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির স্টুডেন্ট এফেয়ার্স-এর পরিচালক সৈয়দ মিজানুর রহমান রাজু টিবিএস-কে বলেন, শহরের ভেতরে তাদের একটি ভবন আছে যার কক্ষগুলো গুদামঘরের মতো, তবে তারা আশুলিয়ার মূল ক্যাম্পাসেই তাদের সকল শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করেন।  

২০১৯ সালে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ থাকা ৩০টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ব্যাপারে শিক্ষার্থীদের সতর্ক করে ইউজিসি।

দেশে বর্তমানে ১০৭টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আছে, এরমধ্যে আটটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম এখনো শুরু হয়নি। 

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT