ঋণ পরিশোধে আরও ছয় মাস পেলেন শিল্প মালিকেরা - CTG Journal ঋণ পরিশোধে আরও ছয় মাস পেলেন শিল্প মালিকেরা - CTG Journal

সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ০৫:১৩ পূর্বাহ্ন

        English
শিরোনাম :
আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর টার্গেটে আরও দুই ডজন হেফাজত নেতা আবারও চিকিৎসক দম্পতিকে জরিমানা ভার্চুয়াল কোর্টে জামিন পেয়ে কারামুক্ত ৯ হাজার আসামি লকডাউনের পঞ্চম দিনে ১০ ম্যাজিস্ট্রেটের ২৪ মামলা ওমানের সড়কে প্রাণ গেলো তিন প্রবাসীর, তারা রাঙ্গুনিয়ার বাসিন্দা একই কেন্দ্রে টিকা না নিলে সার্টিফিকেট মিলবে না মামুনুলের বিরুদ্ধে অর্ধশত মামলা, সহসাই মিলছে না মুক্তি ফিরতি ফ্লাইটের টিকিট পেতে সৌদি প্রবাসীদের বিশৃঙ্খলা সেরে ওঠা কোভিড রোগীদের জন্য কি ভ্যাকসিনের এক ডোজই যথেষ্ট? মানিকছড়িতে ভিজিডি’র চাল বিতরণ কার্যক্রম স্থগিত রাখার নির্দেশ নিরাপদ কৌশল লকডাউন: স্বাস্থ্য অধিদফতর ৩৬ লাখ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেবেন প্রধানমন্ত্রী
ঋণ পরিশোধে আরও ছয় মাস পেলেন শিল্প মালিকেরা

ঋণ পরিশোধে আরও ছয় মাস পেলেন শিল্প মালিকেরা

শ্রমিকদের জন্য নেওয়া পাঁচ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজের ঋণ শোধে আরও ছয় মাস সময় পেলেন শিল্প মালিকেরা। বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়া‌রি) বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক সিরাজুল ইসলাম এই তথ্য জানান। বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন,  করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় পাঁচ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজের ঋণগ্রহীতারা আরও ছয় মাস গ্রেস পিরিয়ড প্রাপ্য হবেন।

তিনি বলেন, আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গ্রেস পিরিয়ড ছিল এক বছর। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শিল্প মালিকরা ঋণ পরিশোধে গ্রেস পিরিয়ড পাবেন দেড় বছর।

এদিকে বাংলাদেশ ব্যাংকের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, রফতানিমুখী শিল্প প্রতিষ্ঠানের শ্রমিক ও কর্মচারীদের ঋণের কিস্তি পরিশোধের সময় আরও ছয় মাস বাড়ানো হয়েছে। শ্রমিক ও কর্মচারীদের তিন মাসের বেতন বাবদ সরকারের প্রণোদনা প্যাকেজ থেকে মালিকেরা ওই ঋণ সুবিধা পেয়েছিলেন।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, ‘মার্চ হতে ঋণগ্রহীতারা আরও ছয় মাস গ্রেস পিরিয়ড প্রাপ্য হবেন।’ সময় বাড়ানোর কারণে আগামী সেপ্টেম্বর থেকে প্রথম কিস্তির সময় শুরু হবে। যদিও আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জানুয়ারি পর্যন্ত ছিল গ্রেস পিরিয়ড। তবে প্রতি মাসে এক কিস্তি হিসেবে ১৮ কিস্তিতে ঋণ পরিশোধের সিদ্ধান্ত বহাল আছে।

জানা গেছে, এসব প্রতিষ্ঠানকে প্রথম দফায় দুই শতাংশ সার্ভিস চার্জে পাঁচ হাজার কোটি টাকা ও চার শতাংশ সুদে পাঁচ হাজার ৫০০ কোটি টাকা ঋণ দেওয়া হয়েছিল। সরকার দুই শতাংশ সার্ভিস চার্জ ও ব্যাংকগুলোকে দেওয়া ঋণ বাবদ চার দশমিক পাঁচ শতাংশ সুদ বাজেট থেকে ভর্তুকি দেবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT