অরাষ্ট্রীয় শক্তির উত্থানে শান্তিরক্ষা অপারেশন জটিল হয়ে পড়ছে: সেনা প্রধান - CTG Journal অরাষ্ট্রীয় শক্তির উত্থানে শান্তিরক্ষা অপারেশন জটিল হয়ে পড়ছে: সেনা প্রধান - CTG Journal

বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ০১:৩৩ অপরাহ্ন

        English
অরাষ্ট্রীয় শক্তির উত্থানে শান্তিরক্ষা অপারেশন জটিল হয়ে পড়ছে: সেনা প্রধান

অরাষ্ট্রীয় শক্তির উত্থানে শান্তিরক্ষা অপারেশন জটিল হয়ে পড়ছে: সেনা প্রধান

সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেছেন, অরাষ্ট্রীয় শক্তির উত্থান, অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার, রাজনৈতিক সংকট এবং পরিবর্তনশীল ভূ-রাজনৈতিক ও ভূ-কৌশলগত অবস্থানের কারণে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা অপারেশন ক্রমশই চ্যালেঞ্জিং এবং জটিল হয়ে পড়ছে। তাই বর্তমান সময়ের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় যুগোপযোগী প্রশিক্ষণের মাধ্যমে শান্তিরক্ষীদের সক্ষমতা বৃদ্ধি, কমিউনিটি-বেজড ইনফরমেশন শেয়ারিং, উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার, জাতিসংঘ সনদের পরিমার্জন এবং প্রাতিষ্ঠানিক অবকাঠামো তৈরি করা জরুরি। রবিবার (১১ এপ্রিল) ঢাকা সেনানিবাসের মাল্টিপারপাস কমপ্লেক্সে অনুষ্ঠিত ‘আর্মি চিফ’স কনক্লেভ’ সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন।

আন্তবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর) জানায়, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর আয়োজনে ঢাকা সেনানিবাসের মাল্টিপারপাস কমপ্লেক্সে রবিবার (১১ এপ্রিল) দেশি-বিদেশি সামরিক এবং বেসামরিক ব্যক্তিদের অংশগ্রহণে ‘আর্মি চিফ’স কনক্লেভ’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন উপস্থিত ছিলেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর এই মাহেন্দ্রক্ষণে বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় জাতির পিতার অবদানকে চিরস্মরণীয় করে রাখার উদ্দেশ্যে আয়োজিত বহুজাতিক সামরিক অনুশীলন ‘শান্তির অগ্রসেনা’র অংশ হিসেবে এই সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

বিশ্বব্যাপী শান্তিও স্থিতিশীলতা রক্ষায় বাংলাদেশের প্রতিশ্রুতি তুলে ধরে সেমিনারে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন বলেন, উন্নত প্রযুক্তি ও অত্যাধুনিক অস্ত্রের ব্যবহার, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বিরূপ প্রয়োগ এবং চলমান বৈশ্বিক মহামারির কারণে শান্তিরক্ষার প্রকৃতি রূপান্তরিত হয়েছে। এই নজিরবিহীন বৈশ্বিক মহামারির ফলে বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় উদ্ভূত চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় অর্থবহ পারস্পরিক সহযোগিতা, নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধি এবং স্বাস্থ্য সম্পর্কিত জরুরি অবস্থার উন্নয়ন প্রয়োজন।

সেমিনারে আলোচনার মূল বিষয়বস্তু ছিল ফিউচার ট্রেন্ড অব গ্লোবাল কনফ্লিক্ট: রোল অফ ইউ এন পিস কিপারস। আলোচনায় কি-নোট স্পিকার হিসেবে বক্তব্য রাখেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ, ভারতের সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এম এম নারাভানে, ভুটান সেনাবাহিনীর ডেপুটি চিফ অপারেশন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল দরজি রিনচেন, ফোর্স কমান্ডার ইউনাইটেডন্যাশন স্মালটি ডাইমেনশনাল ইন্টিগ্রেটেড স্ট্যাবিলাইজেশন মিশন ইন মালি লেফটেন্যান্ট জেনারেল ডেনিস জিলেনসপোরে এবং ফোর্স কমান্ডার ইউনাইটেড ন্যাশনস মালটি ডাইমেনশনাল ইন্টিগ্রেটেড স্ট্যাবিলাইজেশন মিশন ইন দ্যা সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিজিয়ন লেফটেন্যান্ট জেনারেল সিদকি ড্যানিয়েল ত্রাওর।

ভারতের সেনাপ্রধান জেনারেল এম এম নারাভানে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষীদের বর্তমান চ্যালেঞ্জসমূহ তুলে ধরে তা মোকাবিলায় অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে শান্তিরক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা, জাতিসংঘের মতবাদের নমনীয়তা, উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার, যথোপযুক্ত লজিস্টিকস সহায়তা নিশ্চিতকরণ এবং জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাজেট বৃদ্ধির ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

সেমিনারে নৌ ও বিমান বাহিনীর এবং বাংলাদেশ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, কূটনীতিক ও সিনিয়র সম্পাদক ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

আইএসপিআর আরও জানায়, সেমিনারে অংশগ্রহণকারীগণ এবং উপস্থিত অতিথিগণ আগামী দিনগুলোতে বিশ্বে বিভিন্ন সংঘর্ষ মোকাবেলায় জাতিসংঘ শান্তিরক্ষীদের ভূমিকা এবং বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠার বিষয়ে মত বিনিময় করেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনের অন্যতম প্রধান সহযোগী দেশ হিসেবে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী আয়োজিত এই সেমিনার ভবিষ্যতে বৈশ্বিক শান্তি প্রতিষ্ঠায় উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করবে বলে সবাই আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Powered by : Oline IT